মোটর মালিক গ্রুপের দ্বন্দ্বের জেরেই খুন হন বিএনপির শাহীন

ঢাকা, ২৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

মোটর মালিক গ্রুপের দ্বন্দ্বের জেরেই খুন হন বিএনপির শাহীন

বগুড়া প্রতিনিধি ৪:০১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

মোটর মালিক গ্রুপের দ্বন্দ্বের জেরেই খুন হন বিএনপির শাহীন

বগুড়া সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তাররা হলো—বগুড়া শহরের নিশিন্দারা এলাকার মৃত কালুর ছেলে পায়েল শেখ (৩৮) ও মন্ডলপাড়ার আবু তাহেরের ছেলে রাসেল (২৮)। তারা হত্যা মামলার আসামি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপারের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলেন করে বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বগুড়া পুলিশ সুপার জানান, মোটর মালিক গ্রুপের দ্বন্দ্বের জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে।

তিনি আরো জানান, প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদে আসামিরা জানিয়েছে, ১৪ এপ্রিল সন্ধায় মোটর মালিক গ্রুপের এক নেতার অফিসে গোপন বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে শাহীনকে নিষ্ক্রিয় করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১০ জনের একটি দল মোটরসাইকেল নিয়ে এই হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয়।

গ্রেপ্তারকৃত দুজনের মধ্যে নয় মামলার আসামি পায়েল এজাহারনামীয় এবং অপরজন রাসেল সন্দেহভাজন আসামি।

পুলিশ সুপার জানান, অধিকতর তদন্তের স্বার্থে আসামিদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি পালসার মোটরসাইকেলক উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষের রাতে উপশহর এলাকায় বিএনপি নেতা শাহীনকে ছুরিকাহত ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যার পর  মঙ্গলবার বিকেলে নিহতের স্ত্রী আক্তার জাহান শিল্পী বাদী হয়ে জেলা মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

এমএ

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও