মিনু-বুলবুলের বাসভবনে নেতাকর্মীদের মহড়া

ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫

মিনু-বুলবুলের বাসভবনে নেতাকর্মীদের মহড়া

রাজশাহী ব্যুরো ৩:২৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৮

মিনু-বুলবুলের বাসভবনে নেতাকর্মীদের মহড়া

জুমার দিন হওয়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের আগে নেতাকর্মীরা মিজানুর রহমান মিনু ও মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের বাসার সামনে জড়ো হন। সেখানে তারা বিভিন্ন ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে রীতিমতো মহড়া দেন।

ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের অভিযোগ, সমাবেশ ঘিরে ক্ষমতাসীনদের ইশারায় বৃহস্পতিবার থেকে পরিবহন বন্ধ রয়েছে। রাজশাহীকে গোটা দেশ থেকে আলাদা করে ফেলা হয়েছে।

তবে তারা আশা করছেন, সব বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে রাজশাহীর সমাবেশে উপস্থিতির রেকর্ড হবে। এই সমাবেশ স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পর রাজশাহীতে প্রথম জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ হচ্ছে। তবে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠের এই সমাবেশে আসছেন না ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন।

সমাবেশ ঘিরে মহানগরীর জেলখানার মোড়ের মাদ্রাসা মাঠের পাশে দেখা মিলেছে অসংখ্য বিএনপির ব্যানার ও ফেস্টুন। অধিকাংশই দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে।

দলীয় নেতাকর্মীরা দুপুর ২টার দিকে সমাবেশস্থলে ঢুকতে না পেরে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা নেতা মিজানুর রহমান মিনু ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের বাসভবনের সামনে জড়ো হন।

মাদ্রাসা মাঠের পাশে র্যা র দফায় দফায় টহল দিচ্ছে। পুলিশও সতর্ক পাহারায় রয়েছে। রাজশাহী মহানগরীসহ সভাস্থলের প্রবেশ মুখগুলোতে পুলিশ চৌকি বসিয়েছে।

ঐক্যফ্রন্টের রাজশাহী বিভাগের সমন্বয়ক ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, রাজশাহীর এই সমাবেশ থেকে গণআন্দোলন শুরু হবে। রাজশাহী-ঢাকা রুটে বাস বন্ধ থাকলেও সমাবেশে বহু মানুষের সমাগম হবে, যা অতীতে ঐক্যফ্রন্ট কিংবা রাজশাহীর অন্য কোনো সমাবেশে হয়নি।

শারীরিক অসুস্থার জন্য ড. কামাল হোসেন এই সমাবেশে যোগ দিচ্ছেন না বলেও জানান তিনি।

এদিকে, ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ ঘিরে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে প্রথমে সমাবেশ স্থলের কাছাকাছি অবস্থান নেন। পুলিশ আপত্তি জানালে পরে মহানগরীর জিরো পয়েন্টে অবস্থান নেন তারা।

এ সময় মেয়র বলেন, ‘সমাবেশের নামে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে, ছাড় দেয়া হবে না।’

বিএইচএস/আইএম