প্রেমিকাকে অনশনে রেখে নাবালিকাকে বিয়ে করল প্রেমিক

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫

প্রেমিকাকে অনশনে রেখে নাবালিকাকে বিয়ে করল প্রেমিক

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ৪:৫৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০১৮

প্রেমিকাকে অনশনে রেখে নাবালিকাকে বিয়ে করল প্রেমিক

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিয়ের দাবিতে এক কলেজছাত্রী প্রেমিকের বাড়িতে দুই দিন ধরে অনশন করছেন। এদিকে প্রেমিক মাসুদ রানা (২৪) প্রেমিকাকে অনশনে রেখেই সোমবার রাতে এক নাবালিকাকে বিয়ে করেছেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রেমিকার বাবা দরিদ্র হওয়ায় সোমবার রাতে বস্তুল গ্রামের কোরবান আলীর মেয়ে পিংকির সঙ্গে প্রেমিক মাসুদ রানাকে বিয়ে দেন তার বিত্তশালী বাবা সাবেক ইউপি সদস্য হাসান আলী।

স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী জানান, তার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী পোওতা গ্রামের মাসুদ রানার প্রায় চার বছর আগ থেকে মন দেয়া-নেয়া চলছিল। এক পর্যায়ে মাসুদের অভিভাবকরা দারিদ্র্যতার কারণে তার সঙ্গে মাসুদের বিয়ে দিতে অপারগতা জানায়।

তিনি বলেন, মাসুদকে অন্যত্র বিয়ে দেয়ার আয়োজন চলছে এমন খবর পান তিনি। এরপর সোমবার সকালে মাসুদের সঙ্গে তার বিয়ের দাবিতে ওই বাড়িতে গিয়ে অনশন শুরু করেন।

খবর পেয়ে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোক্তার হোসেন মুক্তা ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. শফিকুল ইসলাম ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

চেয়ারম্যান জানান, ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে মাসুদের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক আছে। তাদের সম্পর্কের গভীরতা অনেক দূর গড়িয়েছে। এজন্য ছেলের বাবাকে বিষয়টি সুরাহা করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

‘কিন্তু তিনি তা না শুনে ছেলেকে ইমোশনালি ব্ল্যাকমেইল করে রাতেই ওই কলেজছাত্রীর একই গ্রামের এক নাবালিকার সঙ্গে জোর করে বিয়ে দিয়েছেন’ যোগ করেন তিনি।

নাবালিকার সঙ্গে বিয়ে প্রসঙ্গে ওই ইউনিয়নের নিকাহ্ রেজিস্ট্রার আবদুস সামাদ জানান, ‘ছেলের পরিবার বিয়ে রেজিস্ট্রি করার জন্য আমার কাছে এসেছিল। কিন্তু জন্মসনদ অনুযায়ী কনে নাবালিকা হওয়ায় আমি ওই বিয়ে রেজিস্ট্রি করিনি। পরে ছেলেকে কালেমা-মূলে তারা বিয়ে দিয়েছেন বলে আমি শুনেছি।’

জানতে চাইলে তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, তিনি বিষয়টি ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে শুনছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এআই/এমএসআই