ফিটকিরির যত অসাধারণ ব্যবহার

ঢাকা, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০ | ৬ মাঘ ১৪২৬

ফিটকিরির যত অসাধারণ ব্যবহার

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০

ফিটকিরির যত অসাধারণ ব্যবহার

ফিটকিরি একপ্রকার অর্ধস্বচ্ছ কাচ সদৃশ কঠিন পদার্থ যার স্বাদ মিষ্টি ও কষা এবং অত্যন্ত শুষ্ক প্রকৃতির। মূলত এটি খনিজ দ্রব্য এবং খুব সাধারণ সস্তা ও সহজলভ্য বস্তু। ফিটকিরি পানিতে দ্রবণীয় এর প্রতি অণুতে ২৪ অণু কেলাস পানি বিদ্যমান। আগুনে তাপ দিলে গলে তরল হয়। তাপ অব্যাহত রাখতে কেলাস পানি উড়ে চলে যায়। লবণগুলো ফুলে ফেনার মতো ফুটতে থাকে। সবশেষে এবড়ো থেবড়ো দানাদার গুড়ায় পরিণত হয়। তবে মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার করবেন না।

আগের দিনে বাড়ির বয়স্ক মানুষটিকে দেখা যেত, পানিতে এক টুকরো ফিটকিরি ফেলে নিশ্চিন্ত হতেন। পানি পরিস্রুত হয়ে, নোংরা থিতিয়ে পড়ত নীচে। বা, দাড়ি কাটতে গিয়ে ব্লেডে গালটা আচমকা কেটে গেলে, স্যাভলন বা কোনো আফটারসেভের খোঁজ পড়ত না। হাতের কাছে থাকা ফিটকিরির টুকরো গালে ঘষে নিতেন। ব্যস, রক্ত বন্ধ। এমন প্রচুর গুণ কিন্তু রয়েছে ফিটকিরির।

হঠাৎ রক্ত: দাড়ি কাটতে গিয়ে গালটা কেটে গেলে, সেলুনে এখনও ফিটকিরি ঘষে দেয়। যদি, গাল কাটাই নয়, যেকোনো আঘাতে রক্তপাত হলে, সেখানে ফিটকিরি চূর্ণ করে দিয়ে দিন। কিছুক্ষণের মধ্যেই রক্ত বেরোনো বন্ধ হবে।

টনসিলে আরাম: ঠান্ডা লেগে গলায় ব্যথা হলে বা গ্ল্যান্ড ফুললে, গরম পানিতে এক চিমটে নুন ও ফিটকিরি চূর্ণ মিশিয়ে, দিনে কয়েকবার গার্গেল করুন। স্বস্তি পাবেন।

দাঁতে যন্ত্রণা: যেহেতু অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, তাই দাঁতের রোগেও কিন্তু ফিটকিরি ভালো কাজ দেয়। দাঁতের যন্ত্রণায় ভুগেছেন? বা, মুখ দিয়ে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে? সব মাজনে চেষ্টা করেও, মুখের গন্ধ যাচ্ছে না? তাই কী করবেন, বুঝে উঠতে পারছেন না? আপনাকে এই সমস্যার হাত থেকে মুক্তি দিতে পারে ফিটকিরি। গরম পানিতে ফিটকিরি গুলে নিয়ে, কুলকুচি করুন। আপনি দাঁতের যন্ত্রণার হাত থেকে নিশ্চিতভাবেই মুক্তি পাবেন। মুখের দুর্গন্ধ নিয়েও লজ্জায় পড়তে হবে না।

ঘেমে গোসল: গরমে ঘাম তো হবেই। কিন্তু, যারা খুব বেশই ঘামেন, পরনের জামা চুপচুপে হয়ে ভিজে যায়, তাদের এই বিরক্তিকর অবস্থার হাত থেকে স্বস্তি দিতে পারে এক টুকরো ফিটকিরি। গোসলের সময় এক টুকরো ফিটকিরি পানিতে ভালো করে মিশিয়ে, গায়ে ঢেলে দিন। কিছু দিন এভাবেই গোসল করুন। স্বস্তি মিলবে।

ইসি/

 

কেনাকাটা: আরও পড়ুন

আরও