বর্ষায় ঘর-বাড়ির যত্ন নিবেন যেভাবে

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

বর্ষায় ঘর-বাড়ির যত্ন নিবেন যেভাবে

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৪৭ অপরাহ্ণ, জুন ১৯, ২০১৯

বর্ষায় ঘর-বাড়ির যত্ন নিবেন যেভাবে

এখন বর্ষাকাল। বর্ষাতে যেমন ত্বক ও চুলের যত্নের প্রয়োজন তেমনি ঘর-বাড়িরও যত্নের প্রয়োজন। তা না হলে এ সময় ঘরবাড়িতে স্যাঁতস্যাঁতে ভাবসহ পোকা-মাকড়ের উপদ্রব বেড়ে যাবে। যা  কিনা একটা  অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের  সৃষ্টি করতে সাহায্য করবে। তাই কষ্ট হলেও বর্ষায় ঘর-বাড়ির একটু  বেশি যত্ন নিয়ে তা পরিষ্কার রাখুন।

বর্ষাকাল আসার আগেই ভালো করে দেখে নিন বাড়ির ছাদ, মেঝে ও দুই দেয়ালের সংযোগস্থলগুলোর কোথাও কোনও ফাটল বা আর্দ্রতা আছে কি না।  এরকম কিছু দেখলে দ্রুত এর ব্যবস্থা নিন।

প্রতি বছর বাড়ি রং করার অভ্যাস থাকলে বর্ষার আগেই তা সেরে ফেলুন। রং করার উপায় না থাকলে অন্তত প্রাইমার কিংবা হোয়াইট ওয়াশ করাতে পারেন। মেঝেরও প্রয়োজনীয় মেরামত করান।

মেঝেতে কার্পেট ব্যবহার করার অভ্যাস থাকলে বর্ষার ঋতুতে সেগুলো গুটিয়েই রাখুন। এতে কাদার দাগ বা বার বার ভিজে যাওয়ার হাত থেকেও রক্ষা করা যাবে কার্পেটকে। এমনিতেই ভারী কার্পেট পরিষ্কার করা খুব কষ্টসাধ্য। তাছাড়া বর্ষায় কার্পেট ভিজে  ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে  তা দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই ঝামেলা না বাড়ানোই বুদ্ধিমানের কাজ।

দরজা ও জানালার ধারে যদি কাঠের আসবাব থেকে থাকে তা কিছুটা দূরে সরিয়ে ফেলুন। বাড়িতে কাঠের কাজ চললে তা শেষ করুন বর্ষার আগেই। আলমারির ভেতর স্যাঁতসেঁতে ভাব কাটাতে রাখুন ন্যাপথলিন। খানিকটা নিমপাতাও রাখতে পারেন, নিম জলীয় ভাব কাটায়।

সব কিছু না কেচে আস্থা রাখুন ড্রাই ক্লিনিংয়ে। এমনিতেই বর্ষায় পোশাক শুকনো রাখা বড় দায়, আর ভালো করে না শুকোলে দুর্গন্ধ ছড়াবে অচিরেই। তাই প্রতিদিন কাচাকাচি কমান। যেটুকু না কাচলেই নয়, সেটুকুই কাচুন। প্রতিদিনের আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করেও এই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

জোলো ও স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় বাড়ির সদস্যদের স্বাস্থ্যের বিষয়টিও মাথায় রাখুন। ভুল করেও পানি জমতে দেবেন না আশপাশে। মশা ও অন্যান্য পোকা-মাকড় রুখতে পেস্টিসাইড ব্যবহার করুন। একদিন অন্তর ব্লিচিং পাউডার ও কার্বলিক অ্যাসিড ছড়ান বাড়ির চারপাশে।

বর্ষার আগেই সম্ভব হলে একজন বিশেষজ্ঞ কারিগরের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। গোটা বাড়ির অবস্থান ও পরিস্থিতি বুঝে তিনিই উপযুক্ত পরামর্শ দিতে সক্ষম হবেন। তার উপদেশ মেনে  নিয়ে নিন জরুরি ব্যবস্থা।

বাড়ির মেরামতি বা নিষ্কাশন ব্যবস্থাকে জোরদার করতে এটাও একটা ভাল উপায়।

ইসি/

 

কেনাকাটা: আরও পড়ুন

আরও