গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখার ৮টি কার্যকরী উপায়

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখার ৮টি কার্যকরী উপায়

পরিবর্তন ডেস্ক ২:০৭ অপরাহ্ণ, মে ১১, ২০১৯

গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখার ৮টি কার্যকরী উপায়

এই গরমে বাইরের সূর্যের প্রখর তাপ এবং গরম কোনোভাবে মানিয়ে নিলেও ঘরে এসে সবাই চায় একটু শান্তি পেতে। কিন্তু মাঝে মাঝে দেখা যায় সেই ঘরে এসেও শান্তি নেই গরমে। এমন ভ্যাপসা গরমে ফ্যান চালালেও কোনো  কাজ হয় না। তবে এই গরম থেকে বাঁচতে এসি-ই কিন্তু একমাত্র ভরসা নয়। এসি ছাড়াও প্রাকৃতিকভাবেই গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখা সম্ভব। আর সে সম্পর্কে আপনাদের জানাতেই আজকের এই লেখা। জেনে নিন ৮টি টিপস যাতে গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখা যায়।

গরমে ঘর ঠাণ্ডা রাখতে টিপস

১. ঘর ঠাণ্ডা রাখার জন্যে প্রথমেই যে কাজটি করতে হবে সেটি হচ্ছে যতটা সম্ভব দুপুরের সূর্যের প্রখর তাপ ঘরে আসতে না দেয়া। সেক্ষেত্রে দক্ষিণ ও পশ্চিম পাশের জানালা বা যেগুলোতে সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে সেসব জানালার পর্দা টেনে রাখুন এবং জানালাও বন্ধ রাখুন। আর রাতের বেলা অবশ্যই জানালা খুলে দিন যাতে বাইরের ঠাণ্ডা বাতাস ঘরে প্রবেশ করতে পারে।

২. ফ্যানের বাতাস দ্বিগুণ পেতে এবং ভ্যাপসা গরম থেকে বাঁচতে রাতের বেলা আপনার টেবিল বা পোর্টেবল ফ্যানটি জানালার কাছে নিয়ে চালিয়ে দিন। এটি বাইরের ঠাণ্ডা হাওয়া ভিতরে নিয়ে আসবে এবং ঘরের অসহনীয় গরম দূর হবে।

৩. ইনস্ট্যান্ট এসির সুবিধা পেতে টেবিল ফ্যানের সামনে গামলা ভর্তি বরফ রেখে ফ্যান চালিয়ে দিন অথবা একটি পানির বোতল বরফ করে ফ্যানের সামনে রাখুন। এর ফলে যখনই ফ্যান চালাবেন বাতাসের সাথে বরফের ঠাণ্ডা হাওয়া যোগ হয়ে এসির মতই কাজ করবে।

৪. বাসা অতিরিক্ত গরম থাকার আরো একটি কারণ হচ্ছে বিনা প্রয়োজনে ইলেক্ট্রনিক জিনিস অন করে রাখা। অনেককেই দেখা যায় কারণ ছাড়াই টেলিভিশন, বাতি, কম্পিউটার ইত্যাদি অন করে রাখেন। এর ফলে ঘরের তাপমাত্রা আরও বেড়ে গিয়ে অতিরিক্ত গরম আবহাওয়া তৈরি করে। তাই বিনা প্রয়োজনে এসব জিনিস বন্ধ করে রাখবেন। এর ফলে অত্যধিক গরম থেকে বাঁচার সাথে সাথে ইলেক্ট্রিসিটি বিলও কমে আসবে। আর যদি দিনের বেশিরভাগ সময়ই বাসায় থাকতে হয় তবে এসব ইলেকট্রিক জিনিস যতটা সম্ভব এমন সময়ে চালাবেন যখন তুলনামূলক কম গরম থাকে।

৫. আরো একটি জিনিস খেয়াল রাখবেন সেটি হচ্ছে রান্নাবান্নার কাজ ছাড়া গ্যাসের চুলা বন্ধ রাখবেন। আমাদের অনেকেরই অভ্যাস রয়েছে সারাদিন প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে গ্যাসের চুলা জ্বালিয়ে রাখা। এর ফলেও ঘরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়।

৬. জানালার কাঁচের মধ্য দিয়ে সূর্যের তাপ শোষিত হয়ে ঘরের তাপমাত্রা বাড়িয়ে তোলে অনেকখানি। এসব ক্ষেত্রে যেসব জানালা সরাসরি সূর্যের আলোতে পড়ে সেসব জানালায় হিট প্রটেক্টিং উইন্ডো ফিল্ম লাগান। এতে করে জানালার ভিতর দিয়ে সূর্যের তাপ শোষণ ৬০% পর্যন্ত কমে যায় এবং ঘরও ঠাণ্ডা থাকে। এছাড়াও যেটি করতে পারেন সেটি হচ্ছে জানালার বাইরের দিকে সাদা রঙ করা, এর ফলে সূর্যের আলো প্রতিফলিত হয়ে যাবে এবং কম তাপ শোষণ করবে।

৭. যদি সম্ভব হয় তবে বাড়ির পূর্ব ও পশ্চিম পাশে বেশি করে গাছ লাগান। এটি হচ্ছে দীর্ঘমেয়াদি ইনভেস্টমেন্ট। বাসার আশেপাশে গাছ থাকলে সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে না যার ফলে ঘরের পরিবেশ ঠাণ্ডা থাকে।

৮. স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়া ঘর আরো বেশি গরম করে তোলে। এই সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে গোসল বা কাপড় চোপড় ধোয়ার কাজটি হয় একদম সকালে না হয় বিকেলের দিকে করবেন। কারণ দুপুর বা দিনের গরম সময়ের দিকে এই কাজগুলো করলে ঘরের পরিবেশ আরও আর্দ্র বা স্যাঁতসেঁতে করে ফেলে যার ফলে ঘর আরো গরম হয়ে উঠে।

ইসি/