রাজধানীতে আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স বেড়েছে, পাচ্ছেন কারা?

এ এইচ এম ফারুক / ১:৩৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ০৪,২০১৭

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বেড়েছে আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার। সেই সাথে বেড়েছে আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্সে নেয়ার প্রবণতাও। আওয়ামী লীগ সরকারের বর্তমান মেয়াদের ৩ বছরে ও গত মেয়াদের ৫ বছরে শর্টগান এবং পিস্তলসহ চার ধরনের ক্যাটাগরিতে শুধুমাত্র ঢাকা শহর ও ঢাকা জেলাতে তিন হাজার সাতশ তিনটি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে।

ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কার্যালয়ের আগ্নেয়াস্ত্র শাখা কর্তৃক দেয়া তথ্য পর্যালোচনা করে এ হিসেব পাওয়া গেছে।

সরকারী হিসেব মতে,  ইস্যু করা লাইসেন্সের মধ্যে অর্ধেকের বেশি দেয়া বা নেয়া হয়েছে গত ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে। যার সংখ্যা দুই হাজার ৬৮টি। ঢাকায় সবচেয়ে বেশি অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের প্রথম মেয়াদে এবং দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথমদিকে। ২০১৩ সালে আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে সাতশ ১৬টি। আর তারপরের বছর ২০১৪ সালে দেয়া হয়েছে সর্বোচ্চ সংখ্যক আটশ ২১টি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার প্রথম বছর ২০০৯ সালে এই সংখ্যা ছিলো তিনশ ৩৮টি।

এর মধ্যে ২০১৩ সালে শর্টগানের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে একশ ২৭টি। আর পিস্তল একশ ৩৭টি। একই বছর ৫৩টি রিভলবার  ও ২১ টি রাইফেলের লাইসেন্স দেয়া হয়েছিলো।

আর ২০১৪ সালে দুইশ ৪৪ শর্টগানের লাইসেন্স দেয়া হয়েছিলো। সে বছর পিস্তলের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে সর্বোচ্চ সংখ্যক দুইশ ৬১টি। একই বছরে অস্বাভাবিক রকমের রাইফেলের লাইসেন্সও দেয়া হয়। যার সংখ্যা  দুইশ ৮৯ টি।  যা ৮ বছরে দেয়া রাইফেলের লাইসেন্সেরে অর্ধেকেরও বেশি সংখ্যক। 

ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কার্যালয়ের আগ্নেয়াস্ত্র শাখার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহসিনা নাসরীনের দেয়া তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে- শর্টগান, রাইফেল, পিস্তল ও রিভলবার এই চার ধরনের ক্যাটাগরির অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। কারা এই অস্ত্রের লাইসেন্স নিয়েছেন তা জানাতে অপারগত প্রকাশ করেছে সরকারি এবং সংস্থাটি।  

অস্ত্র শাখার দেয়া তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, বেশি লাইসেন্স দেয়া হয়েছে (প্রায় সমান সংখ্যক)  শর্টগান ও পিস্তলের। এই আট বছরে একহাজার চারশ ৬৬ শর্টগান ও একহাজার চারশ ৯৫ পিস্তলের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। আর রাইফেলের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে পাঁচশ ২৫টি এবং রিভলবার দেয়া হয়েছে দুইশ ১৭টি।

অস্ত্রশাখার দেয়া তথ্যে দেখা যায় ২০১৫ সালে মোট পাঁচশ ৩১ টি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। যার মধ্যে ‍পিস্তল দুইশ ৪০ টি, শর্টগান একশ ৫৮টি, রাইফেল ১০০ এবং রিভলবার ৩৩ টি।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ সরকারের এই দুই মেয়াদের প্রথম বছর ২০০৯ সালে দেয়া তিনশ ৩৮ আগ্নেয়াস্ত্রের মধ্যে  শর্টগান একশ ২৭ টি, পিস্তল একশ ৩৭ টি, রিভলবার ৫৩ টি এবং রাইফেল ২১ টি।

২০১০ সালের দেয়া দুইশ ৬৮ আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্সের মধ্যে একশ ৫৩ টি শর্টগান, পিস্তল ৭৫টি, রিভলবার ২৫টি ও রাইফেল ১৫টি।  আট বছরের মধ্যে ২০১০ সালেই সবচেয়ে কম অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে।

২০১১ সালে লাইসেন্স দেয়া হয়েছে দুইশ ৮২ টি আগ্নেয়াস্ত্রের। এর মধ্যে ১৩৮টি শর্টগান, পিস্তল ৯৬টি, রিভলবার ও রাইফেল ২৪ টি করে ২৮টি।

২০১২ সালের হিসেব পর্যালোচনা করে দেখা যায় তিনশ ৫৩টি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স নিয়েছে ঢাকার নাগরিকরা। এর মধ্যে একশ ৬৬টি শর্টগান, একশ ৪৭টি পিস্তল এবং রিভলবার ও রাইফেল ২০টি করে ৪০টি।

আর সর্বশেষ ২০১৬ সালে সব মিলিয়ে চার ক্যাটাগরিতে লাইসেন্স দেয়া হয়েছে তিনশ ৯৪ আগ্নেয়াস্ত্রের। এর মধ্যে শর্টগান একশ ২৯টি, পিস্তল দুইশ ২৯টি, রাইফেল ২৭ ও রিভলবার ৯টি।

এক প্রশ্নের জবাবে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কার্যালয়ের দেয়া লিখিত তথ্যে জানানো হয়েছে, অস্ত্রের লাইসেন্সের ক্ষেত্রে পিস্তল ও রিভলবার দেয়া হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে অনাপত্তিপত্র পাওয়া সাপেক্ষে।

কাউকে বিশেষ বিবেচনায় অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়া হয় কিনা জানতে চাইলে বলা হয়, বিশেষ বিবেচনায় কাউকে অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়ার কোনো বিধান নেই। শর্ত পূর্ণ সাপেক্ষেই সকল আবেদন বিবেচনায় আসা হয়।

অস্ত্রের লাইসেন্স কারা কারা নিয়েছেন সে সম্পর্কে কোনো তথ্য দিতে তারা অপারগতা প্রকাশ করেছে।  

এএফ/এএসটি 

নিজটির লিঙ্ক : http://www.poriborton.com/law-and-crime/43667

প্রধান সম্পাদক : মোঃ আহসান হাবীব

Poriborton
Bashati Horizon, Apartment # 9-A, House # 21, Road # 17,Banani, Dhaka 1213 BD
Phone: +88 029821191, +88 01779284699
Website: http://www.poriborton.com
Email: report@poriborton.com
            editor@poriborton.com