অযত্ন, অবহেলায় তেওতা জমিদার বাড়ি (ভিডিও)

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

অযত্ন, অবহেলায় তেওতা জমিদার বাড়ি (ভিডিও)

আসাদ লিমন, মানিকগঞ্জ ২:৪৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৭, ২০১৯

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার তেওতা জমিদার বাড়িটি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ও তার সহধর্মিণী প্রমীলা দেবীর স্মৃতি বিজড়িত একটি বাড়ি। বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম একাধিকবার এসেছিলেন এই জমিদার বাড়িতে।

বাড়ির প্রতিটি স্থানে নজরুল ও প্রমীলার অসংখ্য স্মৃতি ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। তার বেশ কয়েকটি লেখাতে সেই প্রমাণ রেখে গেছেন তিনি। এই বাড়িতেই প্রমীলা দেবীকে দেখে নজরুল লিখেছিলেন সেই বিখ্যাত গানটি, ‘তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি, সেকি মোর অপরাধ।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তৎকালীন তেওতার জমিদার কিরণ শংকর রায়ের সাথে ছিল তার সখ্য। জমিদার বাড়ির পাশেই ছিল কবিপত্নী প্রমীলা দেবীর ফুপুর বাড়ি। প্রমীলার বাবা বসন্ত সেনের ভাইয়ের ছেলে বীরেন সেন ছিলেন কবির বন্ধু। সেই সূত্র ধরেই নজরুল-প্রমীলার প্রেম এবং বিয়ে।

নজরুল গবেষক কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম জানান, জমিদার বাড়িটির বয়স প্রায় ৩শ বছর ছাড়িয়েছে। সপ্তদশ শতকের শুরুতে পাচুসেন নামের পিতৃহীন দরিদ্র এক কিশোর তামাকের ব্যবসা করে অর্জন করে বিপুল ধন সম্পদ। দরিদ্র পাচুসেন দিনাজপুরের জয়গঞ্জে জমিদারী কিনে হয়ে যান পঞ্চানন সেন।

জমিদার বাড়ির মূল ভবনের উত্তর দিকের ভবনগুলো নিয়ে হেমশংকর এস্টেট এবং দক্ষিণ দিকের ভবনগুলো নিয়ে ছিল জয়শংকর এস্টেট। প্রতিটি এস্টেটের সামনে বর্গাকৃতির অট্টালিকার মাঝখানে আছে নাটমন্দির। পুর্বদিকের লালদিঘী বাড়িটি ছিল জমিদারদের অন্দর মহল। অন্দর মহলের সামনে রয়েছে দুটি শানবাঁধানো ঘাট।

আর দক্ষিণ পাশের ভবনের নীচে আছে চোরা কুঠুরী, যাকে এলাকার মানুষেরা বলে অন্ধকূপ। উত্তর ভবনের সামনে দাঁড়িয়ে আছে ৪ তলা বিশিষ্ট ৭৫ ফুট উচ্চতার নবরত্ন মঠ। এর প্রথম এবং দ্বিতীয় তলার চারিদিকে আছে ৪টি মঠ।

তেওতা জমিদার বাড়িটি ৭.৩৮ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত।

তেওতা জমিদার বাড়িতে যে স্থাপনাগুলো রয়েছে তা সত্যিই নান্দনিক ও শৈল্পিক। তবে, সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে স্থাপনাগুলো তার সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলছে।

ভবনের কিছু অংশ ধসে পড়ে এটি এখন রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে। স্বাধীনতার পর জমিদার বাড়িটিতে নদী ভাঙনের শিকার ৫০টির বেশী ভূমিহীন পরিবার আশ্রয় নেন। তাদের অবাধ বিচরণে জমিদার বাড়িটি তার আপন সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলেছিল।

যমুনা নদীর কোল ঘেঁষা এই জমিদার বাড়িকে কেন্দ্র করেই এখানে হাইস্কুল, ইউনিয়ন পরিষদ, পোষ্ট অফিস, ভূমি অফিস, প্রাথমিক বিদ্যালয়, মসজিদ, মাদ্রাসা ও বাজার গড়ে উঠেছে বলে জানালেন স্থানীয়রা।

এএসটি/

 

ফিচার : আরও পড়ুন

আরও