পঞ্চগড়ে বাদাম বিক্রি করে কৃষকরা খুশি

ঢাকা, ২০ জুন, ২০১৯ | 2 0 1

পঞ্চগড়ে বাদাম বিক্রি করে কৃষকরা খুশি

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ২:৩০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০১৯

পঞ্চগড়ে বাদাম বিক্রি করে কৃষকরা খুশি

মাটি অপেক্ষাকৃত ঊচু এবং মাটিতে পাথর বালির আধিক্য থাকায় অর্থকরী ফসল উৎপাদনে আগ্রহ হারালেও বিকল্প ফসল হিসেবে বাদাম চাষে এগিয়ে যাচ্ছে পঞ্চগড়ের চাষিরা।

স্থানীয় কৃষকরা জানান, বাদাম চাষে ঝুঁকি কম, নাগালের মধ্যে উৎপাদন খরচও। চলতি বছরে বোরো ধানের তেমন মূল্য না পাওয়ায় কৃষকদের চরম হতাশায় দিন কাটছিলো। কিন্তু এবার ব্যাপকভাবে বাদাম চাষ করেছে জেলার প্রান্তিক চাষীরা। আবহাওয়া কিছুটা বাদাম চাষের জন্য খারাপ হলেও বাদাম বিক্রি করে হতাশা কাটিয়েছেন চাষীরা।

জানা যায়, এবার বিঘা প্রতি ৫ থেকে ৬ মন বাদাম উৎপাদন হয়েছে। প্রতিমন বাদাম বর্তমানে ৩১শ থেকে ৩২শ টাকা দরে বিক্রি করতে পেরে কৃষকরা খুশি। এককথায় অন্যান্য চাষের থেকে বাদাম চাষে কৃষকরা লাভবান হয়েছেন। আগামীতে বাদাম চাষ বৃদ্ধি পাবে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন। পঞ্চগড়ের উৎপাদিত বাদাম দেশের বিভিন্ন স্থানের পাইকাররা এসে ক্রয় করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

জেলার বোদা উপজেলার মাড়েয়া এলাকার বাদাম চাষী রফিকুল, সোলায়মান ও জব্বার পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, যদি আবহাওয়া আর একটু ভালো থাকতো তা হলে বাদামের ফলন আরো বেশী হতো আর ভালো দামে বিক্রি করে আমাদের অবস্থার অনেক উন্নতি হতো। আগামীতে বাদাম চাষ বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তারা।

সাকোয়া বাজারের বাদামের হাটে বাদাম চাষী মনোরঞ্জন, হরিপদ বর্মন পরিবর্তন ডটকমকে আরো বলেন, হামরা তো বোরো ধানের দাম পাই নাই কিন্তু বাদামের দাম পাওয়ায় ধানের কিছুটা হলেও ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পেরেছি।

জেলার বিভিন্ন  বাদাম বিক্রয়ের হাটে সরে জমিনে গিয়ে জানা যায়, পঞ্চগড়ের বাদাম ক্রয়ের জন্য সুদুর  টাঙ্গাইল, ভৈরব, নোয়াখালী থেকে পাইকার এসে এখানকার উৎপাদিত বাদাম ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন বাদাম কারখানা গুলিতে নিয়ে বিক্রয় করে। ভৈরবের বাদাম পাইকার আনোয়ার হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, আমি প্রতিবছর পঞ্চগড়ে বাদাম  কিনতে আসি, এবার গত বছরের চেয়ে প্রায় দ্বিগুন দামে কিনতে হচ্ছে। চাষীরা ভালো দাম পাচ্ছে। আমরাও বাদাম কিনে অন্যত্র বিক্রয় করে ভালো লাভবান হচ্ছি। 

কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের জেলা প্রশিক্ষন কর্মকর্তা মো. আবু হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন এবছর প্রায় ১০ হাজার হেক্টর জমিতে বাদামের চাষ হয়েছে। আবহাওয়া কিছুটা অনুকুলে না থাকায় ফলনে সামান্য ব্যাঘাত হয়েছে। কৃষি বিভাগ বাদাম চাষীদের সবসময় পাশে থেকে এবং প্রয়োজনীয় সহযোগীতা করে আসছে। চাষীরা বাদামের দাম ভালো পাওয়ায় আগামীতে বাদাম চাষ বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তিনি।

এমকেএ/এইচকে

 

ফিচার : আরও পড়ুন

আরও