বিশ্বকাপের জন্য ইরানকে বুটজুতা দিচ্ছে না নাইকি

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

বিশ্বকাপের জন্য ইরানকে বুটজুতা দিচ্ছে না নাইকি

পরিবর্তন ডেস্ক ২:০২ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৩, ২০১৮

বিশ্বকাপের জন্য ইরানকে বুটজুতা দিচ্ছে না নাইকি

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ইরানি ফুটবলারদের জন্য বুটজুতা পাঠাচ্ছে না ক্রীড়া পণ্যসামগ্রী প্রস্তুতকারক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান নাইকি। দেশটির প্রতি মার্কিন নতুন নিষেধাজ্ঞার কারণে বুটজুতার চালান পাঠানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানটি। বিবিসির সংবাদ।

আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপের জন্য ইরানের ফুটবলাদের জুতো সরবরাহের কথা ছিল নাইকির। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি এমন সিদ্ধান্ত ইরানি খেলোয়াড়দের হতাশ করেছে। দেশটির ফুটবল দলের কোচ কার্লোস ক্যুয়েরোজ ফিফার কাছে এ ব্যাপারে সহযোগিতা কামনা করেছেন।

ইরান ফুটবল দলের দায়িত্ব নেয়ার আগে পর্তুগাল ও রিয়েল মাদ্রিদের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কার্লোস।

গত মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে ইরানের সাথে বিশ্বের পরাশক্তিগুলোর পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। যার ফলে তেহরানের ওপরে পুনরায় মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ হয়ে যায়। ২০১৫ সালে সেসময়কার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিলেন।

এর ফলে বেশ কিছু বিদেশি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান   ইরানে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেবার ঘোষণা দিয়েছে।

নাইকির বিবৃতি প্রচার করে ক্রীড়া বিষয়ক চ্যানেল ইএসপিএন জানিয়েছে, নিষেধাজ্ঞার কারণে মার্কিন প্রতিষ্ঠান হিসেবে তারা এ সময়ে ইরানি ফুটবলারদের জন্য জুতা সরবরাহ করতে পারছেন না।

এদিকে ইরানি কোচ কার্লোস বলেন, খেলোয়াড়দের জন্য ক্রীড়া সামগ্রীগুলো তাদের ব্যবহার করতে দেয়া উচিত। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের মাত্র এক সপ্তাহ আগে এ ধরণের সিদ্ধান্তের কোন অধিকার নেই।

তিনি আরও বলেন, আমরা শুধু কোচ, ম্যানেজার এবং খেলোয়াড়। এসব বিষয়ের সাথে আমাদের কোন সম্পর্ক নেই। তবে আমাদেরকে এ ব্যাপারে সহযোগিতা করার জন্য আমরা ফিফাকে জানিয়েছি।

নাইকির এমন সিদ্ধান্তে ইরানের সাধারণ নাগরিকরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। তাদের অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে 'নো টু নাইকি' হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির পণ্য বয়কট করার ডাক দিয়েছে।

প্রতিবাদকারীদের কেউ কেউ বলছেন, ইসরাইলের সাথে ইরান ফুটবল খেলতে অস্বীকৃতি জানালে সেটি ফিফার কাছে রাজনৈতিক ইস্যু হয়ে দাঁড়ায়। আর নাইকির মতো প্রতিষ্ঠান এমন সিদ্ধান্ত নিলে ফিফা চুপ থাকে।

আরজি/