স্মার্টফোন আসক্তি ঠেকাতে প্রচারণায় ফেসবুক-গুগলের সাবেক কর্তারা

ঢাকা, বুধবার, ১৫ আগস্ট ২০১৮ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫

স্মার্টফোন আসক্তি ঠেকাতে প্রচারণায় ফেসবুক-গুগলের সাবেক কর্তারা

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০১৮

print
স্মার্টফোন আসক্তি ঠেকাতে প্রচারণায় ফেসবুক-গুগলের সাবেক কর্তারা

স্মার্টফোন ও ইন্টারনেটের মতো প্রযুক্তির প্রতি মানুষের আসক্তি উদ্বেগজনক হারে বেড়ে চলেছে। এই আসক্তি ঠেকাতে ফেসবুক ও গুগলে কর্মরত ছিলেন এমন প্রযুক্তি বিশারদরা একসঙ্গে একটি নতুন প্রচারণা শুরু করেছেন।

প্রযুক্তি ও সামাজিক মাধ্যমগুলোর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মানুষকে বাঁচাতে ‘দ্য সেন্টার ফোর হিউম্যান টেকনোলজি’ নামের একটি নতুন প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন সিলিকন ভ্যালির এসব কর্মকর্তারা।

প্রতিষ্ঠানটি ‘দ্য ট্রুথ অ্যাবাউট টেক বা প্রযুক্তির আসল রূপ’ সম্পর্কে অবহিত করতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রচারনা চালাবেন।

দ্য সেন্টার ফোর হিউম্যান টেকনোলজি মূলত শিশুদের উপর অনিয়ন্ত্রিত প্রযুক্তি ও সামাজিক মাধ্যমের ব্যবহারের কুফল নিয়ে চিন্তিত।

প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ট্রিস্টান হ্যারিস আগে গুগলের নৈতিকতা বিষয়ক কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেছেন। নিউ ইয়র্ক টাইমসকে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সুপার কম্পিউটারগুলো রয়েছে গুগল আর ফেসবুকে। কিন্তু সেগুলো আমরা কিসের জন্য ব্যবহার করছি? সেগুলো মানুষের, শিশুদের মস্তিষ্ককে প্রভাবিত করতে ব্যবহার করা হচ্ছে।’

ধূমপানের বিরুদ্ধে চালানো সফল প্রচারণার মতো করেই প্রযুক্তির আসল চেহারা সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করার জন্য প্রচারণা চালাবেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের ৫৫ হাজার সরকারি স্কুলের ছাত্র, অভিভাবক ও শিক্ষকদেরকে অতিমাত্রায় প্রযুক্তি ব্যবহারের কুফল সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষ্যে এই প্রচারণা চলানো হবে।

টাইম ম্যাগাজিন জানিয়েছে, অতিরিক্ত প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের শিশুরা অবসাদ, বিষাদসহ বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছে। প্রযুক্তির প্রয়োগ নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন মহলে লবিইং অর্থাৎ তদবিরও করবে এই প্রতিষ্ঠানটি।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ও ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্য শিগগিরই এ সংক্রান্ত আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে। আইনগুলো পাস হলে শিশুদের স্বাস্থ্য ও মনের উপর প্রযুক্তির প্রভাব নির্ণয়ে গবেষণা ও ডিজিটাল বট বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন প্রোগ্রাম সনাক্ত করতে অর্থায়ন করা হবে।

এমআর/এমএসআই

 
.


আলোচিত সংবাদ