বিএনপি অফিসে মহিলা দলের দুই গ্রুপে হাতাহাতি

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিএনপি অফিসে মহিলা দলের দুই গ্রুপে হাতাহাতি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১০:২২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

বিএনপি অফিসে মহিলা দলের দুই গ্রুপে হাতাহাতি

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস গ্রুপের সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের গ্রুপের হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় কনফারেন্স হলে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের অনুসারীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এসময় সুলতানা আহমেদকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার চেষ্টা করা হলে তিনি দ্রুত গাড়িতে উঠে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহিলা দলের একাধিক নেত্রী বলেন, বেশ কিছুদিন যাবৎ সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সম্পর্ক খারাপ যাচ্ছে।

বিকেলে নয়াপল্টনে সাংগঠনিক বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। বৈঠকে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন ইউনিটের নেত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শুরুর আগে সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ সভাকক্ষে প্রবেশ করেন। তিনি সভাপতি আফরোজা আব্বাসকে উদ্দেশ্য করে বলেন, কার সভাপতিত্বে সভা হচ্ছে। কিসের সভা হচ্ছে। সভা কে পরিচালনা করছে? একথা বলার সঙ্গে সঙ্গে আফরোজা আব্বাসের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। 

এসময় আফরোজা গ্রুপের নেত্রী সুরাইয়া সুলতানা মহানগর উত্তরের সভাপতি পেয়ারা মোস্তফার মেয়ে আরজুকে থাপ্পর দেয়। এনিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এসময় বাইরে থেকে খিলগাঁও ও পল্টন এলাকার ছাত্রদল যুবদলের ছেলেরা আফরোজার পক্ষে এসে সুলতানার বিরুদ্ধে মিছিল দেয়। পরে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহূল কবির রিজভীর হস্তক্ষেপে উভয়পক্ষ স্থান ত্যাগ করে।

জানা গেছে, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খানকে সাধারণ সম্পাদক বানাতে চান সভাপতি আফরোজা আব্বাস। এই নিয়েই মূলত সুলতানা আহমেদের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব চলছে। এছাড়া মহানগরের বিভিন্ন কমিটি দেওয়া নিয়েও দুই জনের মধ্যে মতবিরোধ রয়েছে।

যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান ও শাম্মী আকতারসহ মহানগরের বিভিন্ন থানার নেত্রীরা আফরোজা আব্বাসের পক্ষে থাকলেও মহানগর উত্তর সভাপতি পেয়ারা মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক আমেনা, সহসভাপতি কাউন্সিলর মেহেরুন্নেসা, যুগ্ম সম্পাদক তামান্না, দক্ষিণের সভাপতি রাজিয়া আলিম, সাধারণ সম্পাদক শামসুন্নাহার সুলতানা আহমেদের পক্ষে আছেন।

এসব বিষয়ে কথা বলতে আফরোজা আব্বাস, সুলতানা আহমেদ ও হেলেন জেরিন খানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তারা কেউ রিসিভ করেননি।

এমএইচ/এসবি

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও