সাহসী নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ চায় ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সাহসী নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ চায় ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৫:১৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

সাহসী নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ চায় ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’

দেশ ও দেশের জনগণ আজ ভয়াবহ দূর্ঘটনা কবলিত।  সরকার স্বৈরতন্ত্রের অটোব্রেকে ইট চাপা দিয়ে রেখেছে। বিরোধীদল ও জোট বার বার সিগন্যাল মিস্ করছে। এ অবস্থায় দেশ রক্ষার জন্য তরুণ ও সাহসী নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

শুক্রবার  রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দিনব্যাপি কর্মশালায় নেতারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, আমাদের ঐক্যের কেন্দ্রবিন্দু হবে অধিকার। জনগণ রাষ্ট্রের কাছে ভাত, কাপড়, কর্মসংস্থান, বাসস্থান, কথা বলার স্বাধীনতা, জীবন ও সম্পদ রক্ষা এবং ভোটাধিকারের নিশ্চয়তা চায়। রাষ্ট্রের কাছে এটা নাগরিকের অধিকার। জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ গণ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠাকেই দলের আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করেছে।

সভাপতির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, রাজনীতি সম্পর্কে মানুষের ধারণা বর্তমানে খুব নেতিবাচক। দলের যেকোনো পর্যায়ের নেতা হওয়ার জন্য লাখ লাখ টাকার ঘুষ লেনদেন হয়। সন্তানের চাকরির জন্য কৃষককে জমি বিক্রয় করতে হয়। এসব থেকে জাতি মুক্তি চায়। 

নতুন রাজনৈতিক উদ্যোগ ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’এর কর্মসূচি, গঠনতন্ত্র ও মেনিফেস্টো প্রসঙ্গে দিনব্যাপি কর্মশালায় আরও বক্তব্য দেন, সমন্বয়ক মজিবুর রহমান মনজু, ৬৯ এর ছাত্র  আন্দোলনের অন্যতম নেতা জাহাঙ্গীর চৌধুরী, সাবেক সেনা কর্মকর্তা প্রফেসর ডা. আব্দুল ওহাব মিনার, শিল্পদোক্তা মোস্তফা বিন মালেক, মহিউদ্দিন আহমেদ, ব্যারিস্টার জুবায়ের আহমেদ ভূঁইয়া, সাংবাদিক এস কে মন্ডল, মাওলানা আব্দুল কাদের সরকার, নাজমূল হুদা অপু, সাবেক ছাত্রনেতা সাজ্জাদ হোসেন, জননেতা জয়নাল আবেদীন, ওবাইদুল্লাহ মামুন, আব্দুল বাসেত মারজান, সালাউদ্দিন আহমেদ, গোলাম কিবরিয়া, আবু ইউসুফ মজুমদার প্রমূখ।

সকাল ১০ টা হতে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় ঢাকা অঞ্চলের সংগঠকগণ অংশ নেন।  কর্মশালায় প্রস্তাবিত কর্মসূচি, গঠনতন্ত্র, ঘোষণাপত্র, মেনিফেস্টো ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় এবং অংশগ্রহণকারীদের মতামত ও পরামর্শ গ্রহণ করা হয়।

এমএইচ

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও