খালেদার মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের মিছিল

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

খালেদার মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের মিছিল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ২:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০১৯

খালেদার মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের মিছিল

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির দাবিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধ প্রজম্ম দল বিক্ষোভ বিশাল মিছিল করেছে।

শুক্রবার সকালে সাড়ে ১০টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের থেকে এ মিছিল শুরু হয়।  নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও বিএনপি কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। মিছিলে অংশ নেন-বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ও মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের সভাপতি শামা ওবায়েদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, নির্বাহী কমিটির সদস্য সাইফুল ইসলাম পটু, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এম ইউসুফ আলী, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও উত্তরের সভাপতি মোঃ ওবায়দুর রহমান অটলসহ মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম দলের অসংখ্য নেতাকর্মী।

মিছিল শেষে এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া শারীরিক অবস্থা আরও অবনতি হয়েছে। সারা শরীর ব্যথায় কাতরাচ্ছেন। হাত-পা নাড়াতে পারছেন না। বিএনপি চেয়ারপারসনকে কোন প্রকার চিকিৎসাই দেওয়া হচ্ছে না। গত ৮ দিন তার কাছে কোন চিকিৎসক যাননি। জরুরি বিত্তিতে তার উন্নত চিকিৎসা না দিলে তার বড় ধরণের ক্ষতি হয়ে যাবে। তাকে হত্যা করতেই তার কোন চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। সুচিকিৎসার অভাবে প্রানহানীর পর্যায়ে উপনীত ওঠে।’

তিনি বলেন, ‘সরকার গভীর নীলনকশা অনুযায়ী বেগম খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার অপপ্রয়াসে তার চাহিদামত চিকিৎসা প্রদানের সুযোগ দিচ্ছে না। তার প্রাপ্য জামিনে সরাসরি বাধা দেয়া হচ্ছে। নগ্নভাবে আদালতের ওপর হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে।  সুচিকিৎসার অভাবে তার জীবন এখন সংকটাপন্ন।

অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি জানান রিজভী।

পেঁয়াজের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকার পরও ক্ষমতাসীন দলের সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের কেজি  দেড় শতকের পর ডাবল সেঞ্চুরি পেরিয়ে গেছে এমনটা জানান রিজভী।

তিনি বলেন, ‘রাজধানীর খুচরা বাজারে,পাড়া-মহল্লার দোকানগুলোতে পেয়াজের দাম প্রতি কেজি ২৪০ টাকা ছাড়িয়েছে।’

এছাড়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন- হাবিব উন নবী খান সোহেল এবং শামা ওবায়েদ।

এমএইচ

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও