বিএনপির সঙ্গে সফররত বৃটিশ করজারভেটিভ পার্টির বৈঠক

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

বিএনপির সঙ্গে সফররত বৃটিশ করজারভেটিভ পার্টির বৈঠক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৯:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

বিএনপির সঙ্গে সফররত বৃটিশ করজারভেটিভ পার্টির বৈঠক

বিএনপির সঙ্গে সফররত বৃটিশ করজারভেটিভ পার্টির একটি প্রতিনিধি দল বৈঠক করেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই বৈঠক হয়।

যুক্তরাজ্যের ‘কনজারভেটিভ ফ্রেন্ড অব বাংলাদেশ’ এই গ্রুপে নেতৃত্ব দেন পল স্কাউলি যিনি কনভারভেটিভ পার্টির ডেপুটি চেয়ারম্যান। এছাড়া ‘কনজারভেটিভ ফ্রেন্ড অব বাংলাদেশ’এর চেয়ারপারসন এ্যান মেইনসহ কয়েকজন এমপি ও রাজনীতিবিদও ছিলেন প্রতিনিধি দলে।

বিএনপির প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ঘন্টাব্যাপী এই বৈঠকে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা সমস্যা, মানবাধিকার পরিস্থিতি, একাদশ সংসদের বির্তকিত নির্বাচন, অর্থনৈতিক অবস্থা প্রভৃতি বিষয় আলোচনা হয়।

বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে বৃটিশ প্রতিনিধিদলকে দলের কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তার স্বাস্থ্যের অবণতিশীল অবস্থা জানানো হয়।

বৈঠকের পর স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদু চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ‘মূলত বাংলাদেশের প্রকৃত অবস্থাটা কী তারা(বৃটিশ প্রতিনিধি) আমাদের কা্ছে জানতে চেয়েছে।আমরা বাস্তব অবস্থাটা তুলে ধরেছি।’

তিনি বলেন, ‘আলোচনায় অনেক ইস্যুর মধ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে। তারা অনুধাবন করতে পারছে যে, বিষয়টি বাংলাদেশের রাজনীতিতে বড় ধরনের একটা ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশনেত্রীর মুক্তির বিষয় যেমন রাজনীতির সাথে অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত, তেমনি বাংলাদেশের গণতন্ত্রের সাথেও ওতোপ্রতোভাবে জড়িত।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশে যে নির্বাচন হয়ে গেলো তা যে গ্রহনযোগ্য হয়নি দেশে-বিদেশে, এটার সমাধান কি হতে পারে, এটার থেকে কীভাবে আমরা বেরিয়ে আসতে পারি তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি, দেশের অর্থনীতি, দেশের বিচার ব্যবস্থা, রোহিঙ্গা সমস্যার নিয়েও আলোচনা হয়েছে।’

বৃটিশ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা খালেদা জিয়ার ‍মুক্তির বিষয়ে কি বলেছেন জানতে চাইলে খসরু বলেন, ‘ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে যে অন্যায়ভাবে জেলে রাখা হয়েছে তা আমরা বিভিন্নভাবে তুলে ধরেছি, এ ব্যাপারে তো ইউনাইটেড নেশন থেকে শুরু করে বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। উনার স্বাস্থ্যগত দিক থেকে তার মুক্তির বিষয়টা, আইনগতভাবে কেনো মুক্তি হচ্ছে না এটা এখন সকলের কাছে প্রশ্ন।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়ায় তারা(বৃটিশ প্রতিনিধিদল) উদ্বেগও প্রকাশ করেছে। তার মুক্তির সাথে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, আইনের শাসন কোনো কিছুই আলাদা করে দেখার সুযোগ নাই।’

বৃটিশ প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গা সমস্যা দ্রুত সমাধানও চায় বলেও জানান তিনি।

বৈঠকে আরো ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আবদুল মঈন খান, কেন্দ্রীয় নেতা জহিরউদ্দিন স্বপন, ফাহিমা নাসরিন মুন্নী, তাবিথ আউয়াল, জেবা খান, একাদশ সংসদের সাংসদ জিএম সিরাজ, মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান জাহিদ, রুমিন ফারহানা।

এমএইচ

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও