‘পতন হলে স্ত্রী ছাড়া কেউ পাশে থাকে না’

ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

 ‘পতন হলে স্ত্রী ছাড়া কেউ পাশে থাকে না’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

 ‘পতন হলে স্ত্রী ছাড়া কেউ পাশে থাকে না’

যুবলীগে হোন্ডালীগ সেলফিলীগের দরকার নাই বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন যুবলীগের চেয়ার‌ম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। রোববার রাজধানীর গ্রিনরোড স্টাফ কোয়ার্টার মাঠে ঢাকা মহানগর যুবলীগের চারটি ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে তিনি একথা জানান।

সম্মেলনে যুবলীগ সভাপতির বক্তৃতার সময় যুবলীগের একটি মিছিল আসে। এসময় তিনি কিছুটা বিরক্ত হয়ে বলেন, ‘ওই দেখেন তালি পার্টি। এই তালি পার্টিটা কি? আমি একটা কিছু। হনু আসছে; মনে হয় রাজা বাদশা আসছে। যুবলীগে হনুরে দরকার নাই।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, রাজনীতিকে কঠিন বানাবেন না। যুবলীগে হোন্ডালীগ সেলফিলীগের দরকার নাই। শ্রেষ্ঠত্বের বড়াই করবেন না।

এসময় তিনি ছাত্রলীগের বিষয়টি নিয়ে বলেন, ইতিহাসে এই প্রথম ছাত্রলীগের দুই নেতাকে চাঁদাবাজির অভিযোগে অব্যাহতি দিয়েছে যা ছাত্রলীগের ইতিহাসেও প্রথম।

যুবলীগ নেতাদের সতর্ক করে ওমর ফারুক বলেন, পতন হলে স্ত্রী ছাড়া কেউ পাশে থাকে না। জমিনে উত্থান দেখেছি পতনও দেখেছি। পতন হইলে কেউ নাই, বউ ছাড়া কেউ নাই।

আয়োজনের স্থান নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করে যুবলীগের প্রধান বলেন, আমরা আর কোনো জায়গা পেলাম না; এটা কমনসেন্সের ব্যাপার। আমার কাছে খুব অপমান মনে হচ্ছে আপনাদের সাইট সিলেকশন। একটা স্টাফ কোয়ার্টারের ভেতরে কেউ সম্মেলন করে? মাঠ আর নাই? মেইন রোডটা ব্লক হয়ে গেছে। হোন্ডায় ভরে গেছে। এই মোড় থেকে ঘুরে আমার আসতে একঘন্টা লাগছে। এই যে যানজটটি তৈরি করলাম, আমার কাছে এটা খারাপ লাগল।

ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের অন্তর্গত ধানমন্ডি, কলাবাগান, নিউমার্কেট অন্তর্ভুক্ত ওয়ার্ড নং ১৫,১৬,১৭,১৮ এর যৌথ ত্রিবার্ষিক এই সম্মেলনে আরও অংশ নেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এমপি, ঢাকা উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার উন্নয়ননীতি, দূরদর্শী রাজনীতি এবং সুশাসনের কারনেই বিএনপির নেতিবাচক, দুর্নীতিগ্রস্থ, সন্ত্রাসী-জঙ্গীবাদ রাজনীতি আজ বোতলবন্দী।

তিনি বলেন, আন্দোলন নাকি তীব্র থেকে তীব্রতর হবে। গরম মানে না, রোজা মানে না, সেহেরি-ইফতার মানে না শুধু আন্দোলন তীব্র থেকে তীব্রতর হবে। অথচ বিএনপি নেতা জেলবন্দী কিন্তু গাছের পাতাও নড়ে না।

এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার তাপস বলেন, চাঁদাবাজির যায়গা আওয়ামী রাজনীতির কোন সংগঠনে স্থান হবে না। ছাত্রলীগের সভাপতি- সাধারণ সম্পাদকের ঘটনা থেকে শিক্ষা নেয়ার কথাও বলেন তিনি।

এসইউজে

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও