কারাগারে খালেদা জিয়ার ৫৬০ দিন : রিজভী

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

কারাগারে খালেদা জিয়ার ৫৬০ দিন : রিজভী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০১৯

কারাগারে খালেদা জিয়ার ৫৬০ দিন : রিজভী

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ৫৬০ দিন ধরে কারাভোগ করছেন বলে জানিয়েছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

রিজভী বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া ৫৬০তম কালিমালিপ্ত দিবস আজ (বুধবার) ।সুচিকিৎসার অভাবে চারবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর শারিরীক অবস্থার ক্রমাগত অবনতি ঘটছে। সারাদেশের সর্বস্তরের মানুষের অব্যাহত দাবীর পরও সম্পূর্ণ নিরপরাধ খালেদা জিয়াকে শুধুমাত্র প্রতিহিংসাপরায়ণতা চরিতার্থে ক্ষমতার মত্ততায় কারারুদ্ধ রাখা হয়েছে।’

বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

 তিনি বলেন, প্রকাশ্যে স্বগর্বে ঘোষণা দিয়ে খালেদা জিয়ার জামিনে বাধা দিচ্ছেন স্বয়ং সরকার প্রধান নিজেই। দেশনেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে উপহাস করে নিজেরাই চিকিৎসার জন্য বিদেশে দৌঁড়াচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী চোখের চিকিৎসার কথা বলে দুই দফায় দীর্ঘদিন লন্ডনে থেকে এসেছেন। শুধুমাত্র চোখের অপারেশনে এতো দিন সময় লাগে কি না তা নিয়ে আমাদের কিছু বলার কিছু নেই। রোগ-ব্যাধি-জরা বলে কয়ে আসে না। ৭৫ বছর বয়স্কা দেশনেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে অবজ্ঞা-উপহাস না করে দ্রুত তাঁকে মুক্তি দিন। তাঁকে ফিরে পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে দুখিনি বাংলাদেশ।’

ডেঙ্গু প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, ‘ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা শতাধিক ছাড়ালেও সরকার এ নিয়ে এখনও গুজব আবিস্কারের মধ্যেই আছে। ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র  বলেছেন-এডিস মশা মারার জন্য কার্যকর ঔষধ আনা হয়েছে। প্রকৃত অবস্থা হচ্ছে এই ছিটানো ঔষধে এডিস মশা আরো উৎসাহিত হয়ে সন্তান সন্তুতি ব্যাপকভাবে উৎপাদন করে যাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে যা বলা হচ্ছে তা রীতিমত বাকওয়াস।’

তিনি বলেন, ‘ডেঙ্গু মরণের বার্তা নিয়ে হাজির হয়েছে দেশের মধ্যে। ডেঙ্গু আক্রমণের পূর্বেই প্রস্তুতির অভাব এবং ডেঙ্গু রোগে মহামারীতে সারাদেশ আক্রান্ত হওয়ার পরও সরকারের উচ্ছাস ও তামাশারও কোন কমতি নেই। তাই আওয়ামী নেতা-মন্ত্রীদের ফটোসেশনে কাজ হবে না, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন রাজনৈতিক সদিচ্ছা।’

দেশব্যাপী হত্যা, গুম , গলাকাটাকে পরম যত্নে লালন করা হচ্ছে এমন অভিযোগ করে রিজভী বলেন, ‘ক্ষমতাসীনদের পৃষ্ঠপোষকতায় বেআইনী কার্যক্রমকে উৎসাহিত করার জন্যই মানুষ এখন পণ্যে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিনই শিশু, কিশোর, যুবক, ব্যবসায়ী, ছাত্র, মানবাধিকার কর্মী হয় গুম হচ্ছে, না হয় তাদের গলাকাটা লাশ পাওয়া যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘ফেনীতে নিখোঁজের ৭ দিন পর স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার, লক্ষীপুরে আলমগীর হোসেন নামে ব্যবসায়ীকে গলাকেটে হত্যা, হবিগঞ্জে কিশোর সুমন মিয়ার এক মাস দশদিন পার হয়ে গেলেও কোন সন্ধান মেলেনি। এগুলোই এখন সংবাদ মাধ্যমে শিরোনাম। গুম, ক্রসফায়ারের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান। দেশজুড়ে যেন এক অন্ধকার শ্বাসরোধী পরিবেশ।’

এমএইচ

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও