‘ক্ষমতা প্রলম্বিত করতে খালেদাকে বাধা মনে করা হচ্ছে’

ঢাকা, ১৬ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

‘ক্ষমতা প্রলম্বিত করতে খালেদাকে বাধা মনে করা হচ্ছে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৯:৪৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৮, ২০১৯

‘ক্ষমতা প্রলম্বিত করতে খালেদাকে বাধা মনে করা হচ্ছে’

বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন, ‘বর্তমান শাসকগোষ্ঠী তাদের ক্ষমতা প্রলম্বিত করার পথে খালেদা জিয়াকে একমাত্র বাধা মনে করে। তাই মিথ্যা ষড়যন্ত্রমূলক এবং উদ্দেশ্যে প্রণোদিত রাজনৈতিক মামলায় তাকে কারাগারে আটকে রেখে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে।’

সোমবার বিকেলে সংসদ অধিবেশনে কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধিতে জরুরি জন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ নোটিসের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

রুমিন ফারহানা বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মামলার মেরিট, তার বয়স, শারীরিক অবস্থান, জেন্ডার যেকোনো বিবেচনায় জামিন তার অধিকার। তিনি যাতে সহজে মুক্তি না পান তাই একটির পর একটি নতুন মিথ্যা মামলা তার সামনে আনা হচ্ছে। এক এগারোর সরকারের সময় মামলা হয়েছে দুই বৃহৎ রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। কিন্তু পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে কমিটি করে তাদের বিরুদ্ধে হওয়া মামলাগুলো তুলে নিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘একদিকে পুরনো মামলার সঙ্গে সঙ্গে বিএনপির ২৬ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে নতুন করে যুক্ত হয়েছে এক লাখ মামলা। নতুন করে গায়েবি মামলা বলে এক অদ্ভুত মামলা শুরু হয়েছে নির্বাচনের আগে। যে মামলায় মৃত্যু ব্যক্তি, পঙ্গু ব্যক্তি, বিদেশে থাকা ব্যক্তি, ঘটনা ঘটার আগেই মামলা। এ ধরনের মামলা করা হয়েছে গায়েবি মামলার অধীনে।’

আইনের শাসন আর বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার কথা উল্লেখ করে রুমিন বলেন, ‘আইনের শাসন নেই। ষোড়শ সংশোধনী রায় বাতিলের কারণে তাকে দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়েছিল। সেই রায়ে বলা হয়ছিল ডুবন্ত বিচার বিভাগ কোনো রকমে নাক উঁচু করে টিকে আছে। তিনি আমিত্যের দ্বন্দ্বের কথা বলেছিলেন। অন্যদিকে তারেক রহমানকে যে বিচারক নিম্ন আদালতে জামিন দিয়েছিলেন তাকে দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়।’

সংবিধানে ১১৫, ১১৬ অনুচ্ছেদের কারণে বিচার বিভাগ এখনো কার্যত সরকারের অধীনেই রয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেন ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

এইচকে/এইচআর

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও