খালেদা জিয়ার একটি দাঁত তুলে ফেলা হলো

ঢাকা, ১৬ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

খালেদা জিয়ার একটি দাঁত তুলে ফেলা হলো

পরিবর্তন প্রতিবেদক ২:৪৭ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

খালেদা জিয়ার একটি দাঁত তুলে ফেলা হলো

ফাইল ছবি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দাঁতের পরীক্ষা করা হয়েছে। সেইসঙ্গে তার একটি দাঁত তুলে ফেলা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাকে কেবিন ব্লক থেকে নামিয়ে একটি মাইক্রোবাসে করে হাসপাতালের ‘এ’ ব্লকে আনা হয়। পরে হুইল চেয়ারে বসিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় চতুর্থ তলায় ডেন্টাল ইউনিটে। সেখানে দাঁত পরীক্ষার পর খালেদা জিয়াকে আবারো কেবিন ব্লকের ৬২১ নম্বর কেবিনে নিয়ে যাওয়ার হয়। হাসপাতালের অতিরিক্ত পরিচালক নাজমুল করিম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, খালেদা জিয়ার মাড়ির নিচের দিকে একটি দাঁত ধারালো হয়ে পড়েছিল। এর সাথে ঘষা লেগে তার গালে একটি আলসার (ক্ষত) হয়েছিল। অন্যান্য ওষুধে তা না কমায় এখন দাঁতটি তুলে ফেলতে হয়।

হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিফেসিয়াল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মাহমুদা খাতুনের তত্ত্বাবধানে দাঁতটি তুলে ফেলা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ মার্চ বেগম খালেদা জিয়াকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খালেদা জিয়া আর্থাইটিস ও ডায়াবেটিসের সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছেন।

বিএসএমএমইউ-তে ভর্তি পর গত ২৮ মার্চ খালেদা জিয়ার জন্য একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। এ বোর্ডের প্রধান হলেন ডা. জিলন মিঞা। বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, ডা. তানজিমা পারভিন, ডা. বদরুন্নেসা আহমেদ, ডা. চৌধুরী ইকবাল মাহামুদ।

এ ছাড়া ডা. শামিম আহমেদ এবং ডা. মামুন মেডিকেল বোর্ডকে সহযোগিতা করছেন।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও আর্থিক জরিমানা করা হয়। এ রায় ঘোষণার পরই থেকেই খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়। বিএসএমএমইউ-তে স্থানান্তরের আগে তিনি সেখানেই বন্দি ছিলেন।

পিএসএস/আরপি

আরও পড়ুন...
খালেদার ১১ মামলার শুনানি ১৭ জুলাই

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও