নিরাপদ ঈদযাত্রা নিশ্চিতে যা করতে বললেন জিএম কাদের

ঢাকা, ১৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

নিরাপদ ঈদযাত্রা নিশ্চিতে যা করতে বললেন জিএম কাদের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১:৫২ অপরাহ্ণ, মে ২৬, ২০১৯

নিরাপদ ঈদযাত্রা নিশ্চিতে যা করতে বললেন জিএম কাদের

সবার জন্য ঈদের আনন্দ উপভোগ্য করতে ঈদ যাত্রায় সড়ক, নৌ ও রেলপথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

তিনি বলেন, প্রতি বছর ঈদের সময় অসংখ্য দুর্ঘটনায় ব্যাপক সংখ্যক মানুষের প্রাণহানি ঘটে। আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করেন অসংখ্য মানুষ। এতে যেমন করে আমাদের ঈদের আনন্দ ম্লান হয়ে যায়, তেমনি দুর্ঘটনাকবলিত মানুষের পরিবারে সৃষ্টি হয় আজীবনের দুঃখ-দুর্দশা। তাই এবার ঈদ যাত্রার আগেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে, যাতে দুর্ঘটনা এড়িয়ে চলা সম্ভব হয়।

রোববার এরশাদের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালী স্বাক্ষরিত এক বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন।

মহাসড়ক, নৌ ও রেলপথের শৃংখলা রক্ষায় বেশ কিছু প্রস্তাবনাও তুলে ধরেন গোলাম মোহাম্মদ কাদের। তা হলো-সড়ক ও মহাসড়কে ব্যাপক সংখ্যক আইন শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট ও ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচলে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হবে। লাইসেন্সবিহীন চালক দিয়ে যাতে যানবাহন চালানো না হয় সেজন্য কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। বাস কাউন্টারগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে।

তিনি বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী বহন বন্ধ করতে হবে। বাসের ছাদ, ট্রাক বা পিকআপ ভ্যানে যাত্রীবহন বন্ধ করতে হবে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। সড়ক, নৌ ও রেল পথের নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভ্রাম্যমাণ আদালত সক্রিয় থাকতে হবে। লঞ্চগুলোতে ধারণ ক্ষমতার বাইরে যাত্রী বহন রোধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রতিটি লঞ্চের লোড লাইনে দৃষ্টি রেখে নৌ সার্ভিস পরিচালনা করতে হবে। মাঝ নদীতে যাত্রী তোলা এবং যাত্রী নামানো বন্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

এ ছাড়া রেলের টিকেট নিতে যাত্রীরা যেন হয়রানির শিকার না হয় সেজন্য ব্যবস্থা নিতে হবে বলেও দাবি জানান জিএম কাদের।

তিনি আরও বলেন, দূরপাল্লার বাসের বেপরোয়া গতি ও ওভারটেকিং বন্ধ করতে হবে। 

ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে গোলাম মোহাম্মদ কাদের  বলেন, প্রতিটি নাগরিকের ঈদ যাত্রা নিরাপদ ও আনন্দঘন হোক।

এমএইচ/আরপি

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও