কর্মসূচি দিল ঐক্যফ্রন্ট, কবে শুরু জানা নেই

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ | ৮ চৈত্র ১৪২৫

কর্মসূচি দিল ঐক্যফ্রন্ট, কবে শুরু জানা নেই

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৭:৪৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ১১, ২০১৯

কর্মসূচি দিল ঐক্যফ্রন্ট, কবে শুরু জানা নেই

সরকারবিরোধী জনমত গড়ে তুলতে জেলা ও বিভাগীয় শহরে গণসংযোগ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তবে, কবে এ কর্মসূচি শুরু হবে, তা জানাতে পারেননি জোটের নেতারা।

সোমবার বিকেলে মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক কর্মসূচির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন বিএনপি মহাসচিব ও ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ।

এ ছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, কার্যকরি সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্টের দলগুলোকে আরও সুসংহত করার বিষয়ে আমরা ঐক্যমত হয়েছি। গণতন্ত্র ও জনগণের স্বার্থে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই।’

তিনি বলেন, ‘সংবিধাননে যে কথাগুলো আছে, দেশ শাসনের ক্ষেত্রে শাসক দলগুলো যেন তা অনুসরণ করে। সেই বিষয়ে ক্ষমতাসীনদের আমরা চাপ প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এ সময় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘জনগণকে সম্পৃক্ত করতে আমরা জেলা ও বিভাগীয় শহরে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে গণসংযোগ কর্মসূচি পালন করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হয়েছে। সারা দেশের ছাত্রসমাজ জেগে উঠেছিল। কিন্তু, আমরা কি দেখলাম, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনেরই পুনরাবৃত্তি ঘটল। সরকারি ছাত্র সংগঠনের গুণ্ডামি সারাদেশ লক্ষ্য করেছে। এর মধ্যে আশার কথা হচ্ছে, সারা দেশের শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগের গুণ্ডামি দেখল।’

ডাকসুর ভোটে অনিয়মের কথা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। বলেন, ‘এই নির্বাচনের মাধ্যমে প্রমাণ হলে সারা দেশে নির্বাচন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। এ ছাড়া গতকাল রোববার উপজেলা নির্বাচনেও দেশের মানুষ নীবর প্রতিবাদ করেছে। তারা ভোট দিতে যাননি।’

বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার অসুস্থতা বিষয়ে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ। এতটাই অসুস্থ যে, তার মেডিকেল বোর্ড হাসপাতালে ভর্তির কথা বলেছেন। কিন্তু, তিনি যে হাসপাতাল পছন্দ করেন না, সেখানেই ভর্তি করার জন্য বলা হলে তিনি আসেননি।’

সুলতান মুনসুরের শপথের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্ত ছিল আমরা শপথ নেব না। কিন্তু, তিনি তা অমান্য করে শপথ নিয়েছেন। এজন্য জোট ও গণফোরাম সুলতান মুনসুরকে বহিষ্কার করেছে। অবৈধভাবে এ শপথ নেয়ায় তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

এমএইচ/আইএম