‘তৃণমূল চাইলে ভাইস-চেয়ারম্যান পদেও একক প্রার্থী’

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ | ৮ চৈত্র ১৪২৫

‘তৃণমূল চাইলে ভাইস-চেয়ারম্যান পদেও একক প্রার্থী’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৬:৪৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৯

‘তৃণমূল চাইলে ভাইস-চেয়ারম্যান পদেও একক প্রার্থী’

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে কেন্দ্রীয়ভাবে একক প্রার্থী দেয়া হয়েছে। তৃণমূলের নেতারা চাইলে ভাইস-চেয়ারম্যান পদেও একক মনোনয়ন দিতে পারবেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সোমবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচন যাতে অংশগ্রহণমূলক ও সুন্দর হয়, সেজন্য আমরা নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করব। দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকরা বিষয়টি তদারকি করবেন।’

তিনি বলেন, ‘চেয়ারম্যান পদে দলের নৌকা প্রতীকে একক প্রার্থী দেয়া হচ্ছে। ভাইস-চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদটি উন্মুক্ত। স্থানীয় পর্যায়ের নেতারা ইচ্ছা করলে একক মনোনয়ন দিতে পারবেন। এটি আমরা তাদের উপর ছেড়ে দিয়েছি। সেটি সম্ভব না হলে, উন্মুক্ত প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ব্যক্তিই পরে দলের প্রার্থী বিবেচিত হতে পারবেন।’

ওবায়দুল কাদের জানান, আগামী ২২ ও ২৩ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় তৃতীয় ও চতুর্থ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হবে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দল মনোনীত কোনো প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আসলে আমরা তা খতিয়ে দেখব। সত্যতা পেলে তাদের প্রার্থিতা আমরা রাখব না। বিকল্প প্রার্থী দেব।

উন্মুক্ত প্রতিযোগিতায় হানাহানি হতে পারে— এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘হানাহানি, কোন্দলের আশঙ্কা জাতীয় নির্বাচনের আগেও ছিল। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত সব ভালই হয়েছে। স্থানীয় নির্বাচনেও প্রতিযোগিতা থাকে। বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটার আশঙ্কা অনেকেই করছেন। কিন্তু, আমরা চাইব, এ চাওয়াটা যেন অমূলক প্রমাণিত হয়।’

জামায়াতের নতুন নামে আসার পরিকল্পনা বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নতুন বোতলে পুরাতন পানীয়, এমন কিনা পর্যবেক্ষণ করছি। নাম পরিবর্তন করল কিন্তু আদর্শ একই, তাহলে সেটি কি পরিবর্তন? এটিকে পরিবর্তন বলা যাবে না।’

তিনি বলেন, ‘জামায়াতে যা শুরু হয়েছে, শেষ না দেখা পর্যন্ত আমরা কোনো মন্তব্য করব না।’

এখন জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ করার উপযুক্ত সময় কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা সব সময়কেই উপযুক্ত সময় মনে করি। এখানে আদালতের একটা সিদ্ধান্তের বিষয় রয়েছে, সেটি আমরা উপেক্ষা করতে পারি না।’

সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন, দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা প্রমুখ।

এসইউজে/আইএম