মির্জা ফখরুল সজ্জন, সুন্দর করে মিথ্যা বলেন: তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৫

মির্জা ফখরুল সজ্জন, সুন্দর করে মিথ্যা বলেন: তথ্যমন্ত্রী

সচিবালয় প্র্তিবেদক ৩:৪৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯

মির্জা ফখরুল সজ্জন, সুন্দর করে মিথ্যা বলেন: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সজ্জন ব্যক্তি, কিন্তু তিনি সুন্দর করে মিথ্যা কথা বলেন। তাদের (বিএনপি) নির্বাচন প্রক্রিয়াই ছিল ত্রুটিযুক্ত।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে সজ্জন ব্যক্তি বলে উল্লেখ করলে তথ্যমন্ত্রী কীভাবে মূল্যায়ন করেন এ প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বুধবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় তিনি এসব কথা বলেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তারাতো (বিএনপি) নির্বাচনী প্রচারে নামেনি। তাদের নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রস্তুতি ছিল না। ফখরুল সাহেব নির্বাচিত হয়েছেন সেটা ভালো। আমি তাকে অভিনন্দন জানাই। তবে তিনি মহাসচিব হিসেবে যথেষ্ট ব্যর্থ হয়েছেন।

সাংবাদিকদের অপর প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ফখরুল সাহেব বলেছেন ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন ছিল গণতন্ত্রের মহাবিপর্যয়ের দিন। এটা আসলে তা নয়, এটা হচ্ছে দল হিসেবে বিএনপির জন্য মহাবিপর্যয়ের দিন। এটাকে তাদের বিপর্যয়ের দিন হিসেবে পালন করাই উচিত।

মন্ত্রী বলেন, কেউ স্বীকার করুক আর না করুক দেশ কিন্তু বদলে গেছে। বিশ্বে হাতেগোনা কয়েকটি দেশ প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশের উপরে ধরে রাখতে পেরেছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি।

‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অদম্যগতিতে এগিয়ে চলা বাংলাদেশ নিয়ে প্রশংসা করে মানুষ। অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ীরা বাংলাদেশকে নিয়ে প্রশংসা করেন’ যোগ করেন তথ্যমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, দেশে নেতিবাচক রাজনীতি যদি না থাকতো রাষ্ট্র আরো অনেকদূর এগিয়ে যেত। গেল ১০ বছর বিএনপি নেতিবাচক রাজনীতি করেছে। সমালোচনা করার প্রয়োজন আছে। কিন্তু সমালোচনা যখন অন্ধ হয় তখন তা কল্যাণকর হয় না। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা যখন সংঘাতের রূপ নেয় তখন রাষ্ট্রের বড় ক্ষতি হয়।

হাছান মাহমুদ আরো বলেন, বিএনপি কোনো কাজে প্রশংসা করে না। সব কাজে সমালোচনা করে। এটা দেশকে পিছিয়ে দেয়। দেশে সাংঘর্ষিক রাজনীতির অবসান হওয়া প্রয়োজন। এক্ষত্রে সাংবাদিকদের ভূমিকা অত্যন্ত প্রয়োজন। আজ হরতাল যে অপ্রয়োজনীয় তা গণমাধ্যমের কারণে সম্ভব হয়েছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাংঘর্ষিক রাজনীতি বন্ধে আপনাদের ভূমিকা আছে। আমি আমার দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই সাংবাদিক ভাই-বোনদের পরামর্শ নিয়ে তাদের সমস্যাগুলো সমাধানের চেষ্টা করছি। আমি প্রথম মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে নবম ওয়েজবোর্ড নিয়ে গঠিত মন্ত্রিসভার কমিটির বিষয়ে উত্থাপন করেছি। সাত সদস্যের মন্ত্রিপরিষদ কমিটি পাস হয়েছে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের কার সঙ্গে কে কথা বলে সংবাদ প্রচার করছে তা তদন্ত করার প্রয়োজন আছে। তারা ভালো নির্বাচন হয়েছে সেটা বলেছে।

এসএস/এইচআর