গ্রেনেড হামলা মামলার রায় প্রত্যাখ্যান ড্যাবের

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫

গ্রেনেড হামলা মামলার রায় প্রত্যাখ্যান ড্যাবের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৮:৩৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০১৮

গ্রেনেড হামলা মামলার রায় প্রত্যাখ্যান ড্যাবের

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দোষী সাব্যস্ত করে যে রায় প্রদান করা হয়েছে, তা দেশের জনগণ ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে বলে জানিয়েছে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব। সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের পক্ষে সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কে এম আজিজুল হক এবং মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক যুক্ত বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয় ।

বিবৃতিতে তারা বলেন, এই মামলার চার্জশিটে নাম না থাকা সত্ত্বেও পুনঃতদন্তের নামে একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে দিয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নতুন করে তাদের নাম সম্পৃক্ত করা হয়। উক্ত মামলার ৬১ জন সাক্ষীর কেউই সাক্ষ্য প্রদান করেননি যে, তারা এই মামলায় সম্পৃক্ত ছিলেন। একজন মাত্র আসামি মুফতি হান্নানকে ৪১০ দিন রিমান্ডে নিয়ে তার কাছ থেকে জবানবন্দী গ্রহণ করা হয়। পরে মুফতি হান্নান তার সেই জবানবন্দী জোরপূর্বক গ্রহণ ও সত্য নয় এই মর্মে লিখিত বক্তব্য পেশ করলেও কোর্ট তা গ্রহণ করেনি।

জিয়া পরিবার তথা জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ধ্বংস করার জন্য ও রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্য সরকার একের পর একটা ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে নির্বাচন থেকে তাদের দূরে রাখার অপচেষ্টায় লিপ্ত। তারই অংশ হিসেবে সরকার মিথ্যা, বানোয়াট মামলায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারা অন্তরীণ করে রেখেছে।

তারেক রহমানের অন্য একটি মামলায় বেকসুর খালাস দেওয়ায় বিচারককে দেশ ছাড়া করতে বাধ্য করেছে। অতি সম্প্রতি প্রধান বিচারপতিকে সরকারের পছন্দমত রায় না দেওয়ায় তাকেও দেশ ছাড়তে বাধ্য করেছেন।

আজ দেশের সাধারণ জনগণ বিচার বিভাগের উপর সরকারের এই নগ্ন হস্তক্ষেপের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে এবং তারেক রহমানকে উক্ত মামলায় সম্পৃক্ত করে সাজা প্রদান করায় তা ঘৃণভাবে প্রত্যাখ্যান করছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

এএল/