‘ঝুঁকি’ দেখে দুদক এড়ালেন জাপা মহাসচিব, উপস্থিত জনসভায়

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫

‘ঝুঁকি’ দেখে দুদক এড়ালেন জাপা মহাসচিব, উপস্থিত জনসভায়

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:২৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮

‘ঝুঁকি’ দেখে দুদক এড়ালেন জাপা মহাসচিব, উপস্থিত জনসভায়

জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার নিজেকে অসুস্থ দাবি করে মঙ্গলবার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) তলবে হাজির হননি।

দুদকের জিজ্ঞাসাবাদকে নিজের স্বাস্থ্যের জন্য ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ ও ‘উত্তেজক’ উল্লেখ করে তিনি হাজিরা ও অভিযোগ থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেছেন।

অথচ মঙ্গলবার একই সময়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় পার্টির একটি জনসভায় যোগ দেন রুহুল আমিন হাওলাদার।

এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর দুদকের উপ-পরিচালক সৈয়দ আহমেদের পাঠানো এক নোটিসে তাকে মঙ্গলবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেগুন বাগিচার কার্যালয়ে হাজির থাকতে বলা হয়।

রুহুল আমিন হাওলাদারের বিরুদ্ধে দুদকের অভিযোগ, তিনি বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারি আমলা ও আদালতে উৎকোচ প্রদান করেছেন। সরকারি সম্পদ আত্মসাতের মাধ্যমে শত কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন। ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে রাজউকের একাধিক প্লটের মালিক হয়েছেন। এমনকি জাতীয় পার্টি সরকারের অংশীদার হওয়ার সুযোগ নিয়ে হাওলাদার বিভিন্ন অবৈধ সুবিধা গ্রহণ করেছেন বলেও অভিযোগ এনেছে দুদক।

এদিন জাপা মহাসচিব দুদক চেয়ারম্যান বরাবর চিঠিতে নিজেকে দলীয় কাজে ব্যস্ত, অসুস্থতার কারণ আসতে না পারা এবং অভিযোগ থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন।

দুদকের তলবে না আসলেও রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে জাতীয় পার্টির দুই দিনব্যাপী অনলাইন নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে ছিলেন তিনি।

চিঠিতে জাপা মহাসচিব লেখেন, ‘আজকে আপনার (দুদক চেয়ারম্যান) কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল। আমি একজন সাবেক মন্ত্রী, বর্তমান জাতীয় সংসদের সদস্য ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতির কার্যক্রম হিসেবে প্রতিনিয়ত আমাকে কর্মী সংগ্রহ, প্রর্থী বাছাইসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে অত্যন্ত ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। আবার বর্তমানে সংসদ অধিবেশন চলছে এবং সংসদে প্রতিনিয়ত গুরুত্বপূর্ণ আইন পাস হচ্ছে। বিধায় প্রতিদিন আমার সংসদ অধিবেশনে অংশগ্রহণ পার্টির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’

আবেদনে তিনি বলেন, ‘বিনয়ের সঙ্গে জানাচ্ছি— আমি হৃদরোগ, উচ্চরক্তচাপ, prostet enlargeসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে আমি দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসাধীন। বর্তমানে আমি সিঙ্গাপুরের NUH, RAFFLES, SGH ইত্যাদি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন। অতি সম্প্রতি চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যেতে হবে। দেশি-বিদেশি চিকিৎসকরা আমাকে ঝুঁকিপূর্ণ ও উত্তেজক কাজ থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন। সেহেতু আমার পক্ষে ব্যক্তিগতভাবে নোটিস মোতাবেক উপস্থিত হওয়া অত্যন্ত দুরুহ।’

রুহুল আমিন হাওলাদার আরো লেখেন, ‘এমতাবস্থায় আমার স্বাস্থ্য ঝুঁকি এবং বর্তমান পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করে আমাকে ব্যক্তিগত উপস্থিতি ও অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ করছি। সমাজ ও আইনের প্রতি দায়বদ্ধ থেকে একাধিকবার সরকারের মন্ত্রী ছিলাম এবং আমি সর্বদায়ই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে দুদককে সহযোগিতায় সর্বদাই প্রস্তুত আছি এবং থাকব।’

তলবে না আসা প্রসঙ্গে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘দুদকের তলবে কেউ না আসলে তিনি আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ হারাবেন। আইন অনুযায়ী রুহুল আমিন হাওলাদারের বিরুদ্ধে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

টিএটি/আইএম