শেখ হাসিনার সেই চিঠিতে কী ছিল?

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

শেখ হাসিনার সেই চিঠিতে কী ছিল?

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৮

শেখ হাসিনার সেই চিঠিতে কী ছিল?

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সোমবার দলটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস পালন করছে। জরুরি অবস্থা জারির পর সেনা নিয়ন্ত্রিত সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের এই দিনে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। সূধাসদন থেকে গ্রেফতারের পর কয়েকটি মামলায় শেখ হাসিনাকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। আদালতের আদেশের পর তাকে জাতীয় সংসদ ভবনের পাশে সাব-জেলে বানিয়ে সেখানে রাখা হয়।

গ্রেফতারের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বাসায় অবস্থান নেয়। ভোরে গ্রেফতারের আগ মুহূর্তে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধু কন্যা চিঠি লিখে যান। তাতে গোটা পরিস্থিতি বিবেচনায় দেশবাসী ও নেতাকর্মীদের দিকনির্দেশা দেন তিনি। এবারের কারাবন্দি দিবসে শেখ হাসিনার সেই চিঠি হুবহু তুলে ধরা হলো;

প্রিয় দেশবাসী,

আমার ছালাম নিবেন। আমাকে সরকার গ্রেফতার করে নিয়ে যাচ্ছে। কোথায় জানি না। আমি আপনাদের গণতান্ত্রিক অধিকার ও অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যেই সারাজীবন সংগ্রাম করেছি। জীবনে কোনো অন্যায় করিনি। তারপরও মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। উপরে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন ও আপনারা দেশবাসী আপনাদের উপর আমার ভরসা। আমার প্রিয় দেশবাসী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের কাছে আবেদন কখনও মনোবল হারাবেন না। অন্যায়ের প্রতিবাদ করবেন। যে যেভাবে আছেন অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবেন। মাথা নত করবেন না।

সত্যের জয় হবেই। আমি আছি আপনাদের সাথে, আমৃত্যু থাকব। আমার ভাগ্যে যাহাই ঘটুক না কেন আপনারা বাংলার জনগণের অধিকার আদায়ের জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যান। জয় জনগণের হবেই। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়বই। দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটাবোই।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
শেখ হাসিনা
১৬.০৭.২০০৭

২০০৭ সালের ২৪ জানুয়ারি নবম জাতীয় নির্বাচন ঘিরে রাজনৈতিক দলগুলোর অনড় অবস্থানে দেশে বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি হয়। অবশ্য নির্বাচনের আগেই ১১ জানুয়ারি দেশে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়।

এ সময় ড. ফখরুদ্দীন আহমেদের নেতৃত্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকার দেশের শাসনভার নেয়। পেছনে থাকে সেনাবাহিনী। শেখ হাসিনা ছাড়াও আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের গ্রেফতার করা হয়।

সাব-জেলে শেখ হাসিনা অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশ নেয়ার পরামর্শ দেন। প্রায় ১১ মাস কারাবন্দি থাকার পর ২০০৮ সালের ১১ জুন জামিনে মুক্তি পেয়ে পরদিন তিনি চিকিৎসার উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্র যান।

চিকিৎসা শেষে ৬ নভেম্বর দেশে ফেরেন শেখ হাসিনা। প্রথমে তাকে ৮ সপ্তাহের জামিন দেয়া হয়। এরপর কয়েক দফায় জামিনের মেয়াদ বাড়ানো হয়।

দেশে ফিরে শেখ হাসিনা জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নেন এবং আওয়ামী লীগকে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করেন। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নবম জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিপুল বিজয় পায়। সেই থেকে এখনো ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ।

এসইউজে/আইএম