‘গাজীপুরে সরকারি বার্তাই বাস্তবায়িত হচ্ছে’

ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

‘গাজীপুরে সরকারি বার্তাই বাস্তবায়িত হচ্ছে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১:০৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৮

‘গাজীপুরে সরকারি বার্তাই বাস্তবায়িত হচ্ছে’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ঠাকুর ঘরে কেরে আমি কলা খাইনি। গাজীপুর সিটি নির্বাচনে সর্বত্র সরকারি বার্তাই বাস্তবায়িত হচ্ছে। ভোটারদের ভয় দেখাতে প্রশাসন সুচারুভাবে কাজ করছে।

সোমবার সকালে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

এরআগে গতকাল রোববার গাজীপুরের সফিপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে কোনো মেসেজ নেই। যে প্রার্থী উন্নয়নের ধারা রক্ষা করতে পারবেন, ভোটারটা তাকে বিজয়ী করবেন।’

রিজভী বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললে কি হবে, গাজীপুরে প্রশাসন সরকারের মেসেজ অক্ষরে অক্ষরে প্রতিপালন করছে। ভীতি তৈরি করতে পুলিশ পাইকারীহারে গ্রেফতার, বাসায় বাসায় তল্লাশি করা হচ্ছে। এসব দেখে ভোটারদের বুঝতে বাকি নেই, এখানে সরকারের মেসেজ কী?’

তিনি বলেন, ‘গাজীপুরে জনগণ নিজের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন এখন পর্যন্ত সেই পরিবেশ দৃশ্যমান হয়নি। এখানে সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ভোট ঘিরে এখানে বাছাই করে করে দলবাজ পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়োগ দেয়া হয়েছে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘তবে আমাদের বিশ্বাস সব বাধা বিপত্তি অতিক্রম করে ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে যাবেন। কিছুটা সুষ্ঠু ভোট হলেও ধানের শীষের বিজয় ঠেকাতে পারবে না।’

খালেদা জিয়ার জামি বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে জামিন না দিতে সরকার নির্লজ্জ হস্তক্ষেপ করছে। আইনগতভাবে তিনি জামিন পাবার অধিকারী হলেও দেয়া হচ্ছে না।’

রিজভী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে দেশের মানুষ সর্বোচ্চ আদালতের কাছে সুবিচার প্রত্যাশী। উচ্চ আদালতের প্রতি মানুষের আস্থা এখনো ক্ষয়প্রাপ্ত হয়নি। মানুষের শেষ আশ্রয়স্থলেও যদি ফাটল ধরে তাহলে গোটা দেশে নৈরাজ্য নেমে আসবে। সমাজ অরাজকতার অন্ধকারে ঢেকে যাবে। প্রতিহিংসা এক ধরনের বন্য বিচার। আদালত যদি সরকারের প্রতিহিংসা বাস্তবায়নের যন্ত্রে পরিণত হয়, তাহলে দেশের জনগণ স্বৈরাচারী সরকারের ক্রীতদাসে পরিণত হবে।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার গুরুতর অসুস্থতা নিয়ে আওয়ামী নেতারা বিকৃত বিবৃতি দিচ্ছেন, কটূ কথা বলেই যাচ্ছেন। আমরা আবারও দ্বিধাহীন কণ্ঠে বলতে চাই— দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিৎিসার ব্যবস্থা করা হোক। অন্যথায় সরকারের অন্যায়ের কড়ায়-গণ্ডায় হিসাব জনগণ আদায় করে নেবে।’

এমএইচ/আইএম