পৃথিবীকে নিয়ে যাই উচ্চতায় বার বার

ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | ৫ আষাঢ় ১৪২৬

পৃথিবীকে নিয়ে যাই উচ্চতায় বার বার

হাসনাইন সাজ্জাদী ৫:০৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৮

পৃথিবীকে নিয়ে যাই উচ্চতায় বার বার

শূন্যতার অসীমে বসবাস ভেসে থাকা এই শূন্যতায়

কত কত গ্রহ নক্ষত্রাদি বাস করে এই শূণ্যতায়

সেখানে আমি নিয়ে যাই পৃথিবীকে বারবার

মঙ্গলে এখন যে পৃথিবীর চাষ সেতো আমারই দান

শ্রমে ঘামে আমি আছি পৃথিবীপতি তার জন্যেই আমি

তাকে বাঁচানোর জন্য, রক্ষার জন্য আমার সংগ্রাম

গ্রিন হাউজ এফেক্ট আর এলনিনোর বিরুদ্ধে।

এই পৃথিবী আমার মা জন্মদাত্রী সে আমারই

কৃতজ্ঞতা তার প্রতি অশেষ আমার আরো বহুবিধ

তাই আমি সংগ্রাম করি পরিবেশ প্রতিবেশ রক্ষায়

বরফগলা রোধ, ভূমিস্তর রক্ষা ও জনসংখ্যার

বিস্ফোরণ প্রতিরোধে।

আমি পৃথিবীর জন্য বারবার উচ্চতা খুঁজি সে জন্মদাত্রী

তার আলো বাতাসে আজন্মকাল আমি মানুষ

আরো সন্তান আছে তার গরু ছাগল হাসমুরগী ইত্যাদি ইত্যাদি

কারোই গরজ নেই তাকে নিয়ে আমি যেমন ভাবিত হই

ওরা খায় ঘুমায় আর সঙ্গম করে আমি আরো বেশি দায়বান

আমি খাই ঘুমাই গতর খাটি সঙ্গমও করি পরম তৃপ্তির সাথে।

আমি পৃথিবী নিয়ে ভাবি বেশি তাকে রক্ষার জন্য,তাকে নির্মল রাখতে

সাম্য সমাজ প্রতিষ্ঠা করে তার ভারসাম্য আমি চাই বারবার

আমি যখন বিমানে চড়ি ট্রানজিট নেই হংকং কিংবা চায়নার সাংহাই,কুনমিং নানা বন্দরে,

জাপানে নারিতা বিমানবন্দর থাইল্যান্ডের সুবর্ণভূমি

কিংবা কোরিয়ার সিউল থেকে শূন্যতায় যখন ভেসে বেড়াই

তখন সেও ভাসে আমার উচ্চতায় নাহলে প্রকৃতি আর কতটুকু

নিজে জানে আর কতটুকুই উচ্চতা আমরা তার সবই জানি।

একটু উপরে তাকালেই শেষ যার আমিই তাকে চাঁদে নিয়ে যাই

মঙ্গলে নিয়ে যাই গ্রহগ্রহান্তরে দৃষ্টি রাখি

তখন সেও আমার সাথে ভ্রমণ করে দৃষ্টি রাখে

উপভোগ করে বিশ্বভ্রমাণ্ডের রুপ গুণ আরো যত

আমার উপর খড়গ মহামারি ঝড় জলোচ্ছ্বাস যত ক্ষোভ রাগ

সবই তার বিপর্যয় আমাকে ঘিরে আমি তবু তার কল্যাণীয়

তাকে বাঁচানোর দায় ছাড়াও আমার কত দায় নিজেকে রক্ষার

আমি ভাবি বেঁচে থাকাই বড়, বেঁচে থাকলে আমার সম্ভাবনা থাকে।

আমিই তাকে নিয়ে যাই উচ্চতায় বার বার সেই আমি মানুষ প্রকৃতির।