বিন্দুতে বিশ্বভ্রমণ

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৫ পৌষ ১৪২৫

বিন্দুতে বিশ্বভ্রমণ

রাসেল আশেকী ৪:৫২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৭, ২০১৮

বিন্দুতে বিশ্বভ্রমণ

যে পথে আমার পা সে পথেই জীবন
আমি হাঁটছি পথের শেষ থেকে পথ সৃষ্টি করে
অচল মুদ্রা ফেলে চলেছি আপন ইচ্ছার কাছে
দেহের চামরা খুলে রেখেছি রোদ-বাতাসের শরীরে
মৃত্যুকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে ঝাঁক ঝাঁক আলো
হাড়ে ফুটছে গোলাপ!

সামনে আলোর সাগর
কঠিন ধ্যানে জাগছে নীল পাহাড়!
একদল প্রজাপতি টুকে নিচ্ছে দিন
রেশমি সুতোর মতো উড়ছে আকাশ
মেঘগুলো খণ্ড খণ্ড--গলছে আমার চুলে
এ নক্ষত্র রাতের গর্ভেই জন্ম নিচ্ছে নতুন সময়
শেষ হচ্ছে শেষের দৃশ্য : যুদ্ধে ভাসা কান্নার ছবি!
বাড়ছে মনের সাহস অঙ্গীকার : আর ডাকব না বিপদ!

অনুভব করছি সেই দিন, যেদিন এলো প্রথম মানুষ
সেদিন থেকেই নতশিরে স্বীকার করছি সেই বাক্য
যে মারে সে মরে, যে পোড়ায় সে-ই পোড়ে।

জগতের ওসব অসুখ থেকে মুক্ত আমি
উড়ছি আলোর স্রোতে, ঘুরছি প্রাণের উৎসবে
এত সুগন্ধ এত সৌন্দর্য এত মুগ্ধতার ঢেউ তুলে তুলে
আর টিকে থাকছি নির্ভয়ে--রক্তে প্রেম আছে বলে।

আজ এ বিন্দুতে
অখণ্ড আকাশ অনাথ আশ্রমে জাগছে যেভাবে
মনের জোরে টিকে থাকার অশেষ উদ্যোগ নিয়ে
তেমনি আমি আগুন থেকে বের করে আপন আত্মাকে
লেগে আছি বাংলার বুকে, পৃথিবীর চোখে।