ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানল, জরুরি অবস্থা জারি

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানল, জরুরি অবস্থা জারি

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০১৯

ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানল, জরুরি অবস্থা জারি

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানল ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। ওই অঞ্চলের ৯০ হাজার অধিবাসীকে আগুনের ভয়াবহতা থেকে নিরাপদে সরানো হচ্ছে। রোববার ভোর থেকে স্থানীয় সোনোমা কাউন্টি অগ্নি নির্বাপক বিভাগ জরুরি অবস্থার ঘোষণা দিয়েছে। ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের লক্ষ লক্ষ মানুষ দাবানলের কারণে বিদ্যুৎ ও গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিনরাত পার করছেন।

ভয়েস অব আমেরিকার খবরে বলা হয়েছে, আগুনের তীব্রতায় সান ফ্রান্সিসকো বে এলাকায় তাপমাত্রা মাঝে মাঝে ১১২ ডিগ্রি ফারেনহাইট হয়ে উঠছে। মেক্সিকোর বাহা ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটে দাবানলে ৩ জন নিহত ও ১৫০টি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

অন্যান্য গণমাধ্যম বলছে, দাবানলের ভয়াবহ আকার নিচ্ছে। বসতি এলাকায়ও আগুন ছড়িয়ে পড়ছে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। ১০৪ বর্গ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে থাকা বাসিন্দাদের অন্যত্র সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

সান ফ্রান্সিসকোর উত্তর অংশের বনাঞ্চলে আগুন ছড়িয়ে পড়েছিল। ঝড়ো হাওয়ায় সেই আগুনের তীব্রতা ক্রমশ বাড়ছে। দমকলকর্মীরা দিনরাত চেষ্টা চালিয়েও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছেন না। প্যাসিফিক গ্যাস অ্যান্ড ইলেকট্রিক (পিজি অ্যান্ড ই) গত কাল স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা থেকে ৩৬টি কাউন্টিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা শুরু করেছে। ফলে কয়েক লক্ষ মানুষকে ৪৮ ঘণ্টা অন্ধকারে থাকতে হবে। সোনোমা কাউন্টির শেরিফ মার্ক এসিক জানিয়েছেন, বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যে কোনও সময় অন্যত্র সরে যেতে হবে— সেই প্রস্তুতি রাখতে বলা হয়েছে প্রায় ১ লক্ষ ৮০ হাজার বাসিন্দাকে। তিনি বলেন, ‘‘বাসিন্দারা অনেকেই বলেছেন, এই বিপদের মোকাবিলা করতে পারব এবং বাসস্থান ছাড়ছি না। কিন্তু আমরা বলেছি, এটা আপনাদের পক্ষে সম্ভব নয়। এলাকা ফাঁকা করে দিন।’’ লস অ্যাঞ্জেলেস এবং সোনোমা কাউন্টিতে জরুরি অবস্থা জারি করেছে প্রশাসন।

পিজি অ্যান্ড ই-র এক আধিকারিক বলেছেন, ‘‘বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করার জন্য সাড়ে ২৩ লক্ষ মানুষ মানুষকে অন্ধকারে থাকতে হবে। ৩৬টি কাউন্টির ব্যবসায় এর প্রভাব পড়বে।’’

এর আগে আবহাওয়ার দফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়, শনিবার রাত থেকে ঝড়ো হাওয়া বইতে শুরু করবে, ফলে আগুন আরও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আরপি

 

উত্তর আমেরিকা: আরও পড়ুন

আরও