ফের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জাস্টিন ট্রুডো!

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

ফের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জাস্টিন ট্রুডো!

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:২১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯

ফের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জাস্টিন ট্রুডো!

কানাডা ফেডারেল নির্বাচনের ফলাফলে এগিয়ে আছে জাস্টিন ট্রুডোর ক্ষমতাসীন দল লিবারেল পার্টি। এর ফলে দ্বিতীয় বারের মত কানাডায় ক্ষমতায় আসছেন জাস্টিন ট্রুডো। তবে, সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে ‘মাইনরিটি গভর্নমেন্ট’ হিসেবে ট্রুডো ক্ষমতায় আসছেন বলে জানা গেছে।

প্রাথমিক ফলাফলে দেখে গেছে, ৩৩৮টি আসনের মধ্যে ট্রুডোর দল পেয়েছে ১৫৬টি আসন। এছাড়া তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যান্ড্রু শির কনজারভেটিভ পার্টি ১২২টি আসন পেয়েছে। দেশটিতে এককভাবে সরকার গঠনে প্রয়োজন ১৭২টি আসন।

মোট ১০টি প্রদেশ নিয়ে গঠিত কানাডা আয়তনের দিক থেকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। প্রায় চার কোটি মানুষের দেশটিতে এবারের নির্বাচনে অংশ নেয়া ছয়টি রাজনৈতিক দল হচ্ছে- লিবারেল, কনজারভেটিভ, নিউ ডেমোক্র্যাটিক, ব্লক কুবেকুয়া, গ্রিন ও পিপলস পার্টি অব কানাডা।

এর আগে গত পাঁচ সপ্তাহের নির্বাচনি প্রচারণা শেষে সোমবার কানাডার হাউস অব কমন্সের ৩৩৮ আসনে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। এবারের নির্বাচনে মোট ছয়টি দল অংশ নিলেও মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতাটা হয় প্রধানমন্ত্রী ও লিবারেল পার্টির নেতা জাস্টিন ট্রুডো এবং কনজারভেটিভ পার্টির নেতা অ্যান্ড্রু শির মধ্যে।

ওই নির্বাচনি প্রচারণায় নিজের উদার অভিবাসননীতি নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েন জাস্টিন ট্রুডো। জলবায়ু ইস্যুতেও তার বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থতার অভিযোগ উঠে।

কানাডার নির্বাচনী নিয়ম অনুযায়ী, কোনো নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসন পাওয়া দল অর্ধেকের বেশি আসনে জিততে না পারলে তাকে ‘সংখ্যালঘু সরকার’ বলা হবে। অর্ধেকের বেশি আসন পেলে হাউজ অব কমন্সের নিয়ন্ত্রণ তাদের হাতে থাকে।

সংখ্যালঘু সরকারের অসুবিধা হল কোনো বিল পাস করতে গেলে আসন অনুযায়ী বিরোধী দলের সমর্থন লাগে। বিরোধীরা চাইলেই কোনো বিল আটকে দিতে পারেন। বাজেটের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে বিরোধীরা সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে পারে।

এভাবে বিতর্কিত ইস্যুতে কোনো প্রস্তাবে সরকার হেরে গেলে পার্লামেন্ট ভেঙে নতুন নির্বাচন দিতে হয়।

‘সত্যিকারের পরিবর্তনে’র অঙ্গীকার নিয়ে ২০১৫ সালে ক্ষমতায় আসেন সুদর্শন ট্রুডো। কিন্তু চার বছর বাদে তার সেই অঙ্গীকার প্রশ্নের মুখে পড়েছে।

জেডএস

 

উত্তর আমেরিকা: আরও পড়ুন

আরও