‘পরমাণু শক্তি হবে সবার, নয়তো পুরোপুরি নিষিদ্ধ’

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘পরমাণু শক্তি হবে সবার, নয়তো পুরোপুরি নিষিদ্ধ’

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:১৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯

‘পরমাণু শক্তি হবে সবার, নয়তো পুরোপুরি নিষিদ্ধ’

পরমাণু শক্তির উৎপাদন ও এর ব্যবহারে দ্বৈত নীতির জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের তীব্র সমালোচনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। তিনি বলেছেন, হয় বিশ্বের সব দেশ পরমাণু শক্তি ব্যবহারের অধিকারী হবে আর তা না হলে পরমাণু শক্তির ব্যবহারের বিষয়টি পুরোপুরি নিষিদ্ধ করতে হবে।

গতকাল (মঙ্গলবার) জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম বার্ষিক অধিবেশনে দেয়া বক্তৃতায় এরদোগান এই বৈষম্যের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, “যেসব দেশের কাছে পরমাণু শক্তি আছে এবং যেসব দেশ এই শক্তির অধিকারী নয় তাদের ভেতরে যে বৈষম্য বিরাজ করছে তাতে বৈশ্বিক ভারসাম্যহীনতা তৈরি হয়েছে। এসব বিষয় বিবেচনা বিবেচনা করে পরমাণু শক্তির ব্যবহার হয় পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে হবে আর তা না হলে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিতে হবে।”

এর আগে গত ৫ সেপ্টেম্বর তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, পরমাণু অস্ত্রধারী দেশগুলো আংকারাকে পরমাণু শক্তির অধিকারী হওয়ার পথে বাধা দিতে পারে না।

রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্রয় নিয়ে আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্কের টানাপড়েনের মধ্যে এরদোগান একথা বলেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন, “বেশ কয়েকটি দেশের কাছে পরমাণু ওয়ারহেডবাহী ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে এবং এরকম দেশের সংখ্যা একটি দুটি নয়। অথচ তারাই বলে আমরা পরমাণু অস্ত্র বানাতে পারব না। এটি গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।”

গতকাল জাতিসংঘে দেয়া বক্তৃতায় এরদোগান ফিলিস্তিন ইস্যুতে আমেরিকার “শতাব্দীর সেরা চুক্তি”র নেপথ্য উদ্দেশ্য নিয়েও প্রশ্ন তোলেন, পাশাপাশি কাশ্মীর ইস্যুতে সংলাপের আহ্বান জানান। এ বিষয়ে যথাযথ মনোযোগ দিতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমালোচনা করেন। 

এমএফ/

 

উত্তর আমেরিকা: আরও পড়ুন

আরও