রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র কেনা নিয়ে তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্রের আল্টিমেটাম

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র কেনা নিয়ে তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্রের আল্টিমেটাম

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:২০ অপরাহ্ণ, জুন ২৯, ২০১৯

রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র কেনা নিয়ে তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্রের আল্টিমেটাম

রাশিয়ার অন্যতম শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তুরস্ক কিনতে চাওয়াটা ‘একটা সমস্যা’ বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

জি-২০ সম্মেলনে তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে তার এ মন্তব্য জানান ট্রাম্প।

ওয়াশিংটন পরিষ্কারভাবে জানিয়েছে, তারা রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনার বিরোধী। তুরস্ককে এটা কেনা বন্ধ করতে ৩১ জুলাই পর্যন্ত সময় বেধে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান তৈরিতে তুরস্কের অংশগ্রহণের সঙ্গে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনা সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র।

জাপানের ওসাকায় চলমান জি-২০ সম্মেলনে এরদোয়ানের সঙ্গে বৈঠকে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।

ক্ষেপণাস্ত্র কেনার বিষয়টিকে ‘সমস্যা’ হিসেবে অভিহিত করে ট্রাম্প বলেন, ‘তুরস্ক আমাদের বন্ধু। আমরা বিশাল বাণিজ্য অংশীদার। আমরা আরও বড় হয়ে উঠতে যাচ্ছি।’

ওয়াশিংটন জানিয়েছে, ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে তুরস্ক এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র কেনা বাতিল না করলে আঙ্কারাকে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কিনতে দেয়া হবে না। একই সঙ্গে এসব যুদ্ধবিমান চালানোর প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন যেসব তুর্কি পাইলট, তাদেরকেও যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দেয়া হবে।

তুরস্কের ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয়ের সিদ্ধান্তে ন্যাটোর সহযোগী দেশগুলোর ভ্রুকুটি এবং ওয়াশিংটনের কঠোর সমালোচনার মুখে পড়ে তুরস্ক। যুক্তরাষ্ট্র আশা করেছিল তুরস্ক তাদের তৈরি প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র সুরক্ষা ব্যবস্থা কিনবে।

তবে তুরস্ক বরাবরই এস-৪০০ কেনার সিদ্ধান্তে অটল ছিল। আগে এ মাসেই এরদোয়ান জানান, এটি কেনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে এবং আগামী মাসে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো তুরস্কে পাঠানো হবে।

এমআর/এইচআর

 

উত্তর আমেরিকা: আরও পড়ুন

আরও