মার্কিন নৌবাহিনীতে লিস্ট করে ধর্ষণের পরিকল্পনা ফাঁস

ঢাকা, ১৮ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

মার্কিন নৌবাহিনীতে লিস্ট করে ধর্ষণের পরিকল্পনা ফাঁস

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:৪৫ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০১৯

মার্কিন নৌবাহিনীতে লিস্ট করে ধর্ষণের পরিকল্পনা ফাঁস

দেশ রক্ষার দায়িত্ব যাদের উপরে, নারী সহকর্মীদের প্রতি তাদের ‘কুৎসিত মানসিকতা’র মারাত্মক এক রিপোর্ট সম্প্রতি প্রকাশ পাওয়ায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

নারী সহকর্মীদের ‘ধর্ষণের তালিকা’ তৈরি করার অভিযোগ উঠেছে মার্কিন নৌবাহিনীর সাবমেরিন ইউএসএস ফ্লোরিডায় নিযুক্ত পুরুষ কর্মীদের বিরুদ্ধে।

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, রিপোর্টে যে ঘটনার উল্লেখ রয়েছে তা এক বছর আগের হলেও সম্প্রতি সেই তথ্য ফ্রিডম অফ ইনফরমেশন অ্যাক্ট-র মাধ্যমে মিলিটারি.কম নামে একটি ওয়েবসাইটের হাতে এসে পৌঁছায়। শুক্রবার সেই রিপোর্টটিই প্রকাশ করে তারা।

ওই ওয়েবসাইটের তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, ৭৪ পাতার ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, সাবমেরিনের গোল্ড ক্রু-র পুরুষ সদস্যদের মধ্যে নারীদের নাম নিয়ে তৈরি করা দুটি তালিকা ছড়িয়ে পড়েছে। ৩২ নারীকে নিয়ে ওই দুই তালিকা তৈরি হয়েছে। এই ৩২ নারীও সাবমেরিনের গোল্ড ক্রু-তে নিযুক্ত।

দুটি তালিকার একটিতে ৩২ নারীকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তারকা চিহ্নিত করা হয়েছে। অন্যটিতে নারী সহকর্মীদের নামের পাশে যৌনতা নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে।

কোন নারী সহকর্মীর সঙ্গে কী ধরনের যৌন কার্যকলাপ চালানো হবে, তা লেখা রয়েছে তাদের নামের পাশে। এর প্রত্যেকটিই আক্রমণাত্মক যৌনতার পরিচয়।

মিলিটারি.কমের রিপোর্ট অনুযায়ী, এই দুটি তালিকাই সাবমেরিনের গোল্ড ক্রু-র সমস্ত পুরুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছিল। দুটি তালিকাই প্রথমে গোল্ড ক্রু-র কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মধ্যে রাখা ছিল। প্রথমে ক্রু-র এক সদস্য সেটা দেখতে পান। প্রিন্ট আউট বের করে তিনি তার বসকে বিষয়টি জানান। তারপর বিষয়টা ক্রমশঃ জানাজানি হয়ে যায় এবং সমস্ত পুরুষ সদস্যের কাছেও তালিকার প্রিন্ট আউট ছড়িয়ে পড়ে।

এই ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১৮ সালের জুনে। কে এই তালিকা বানিয়েছেন, তা টানা দু’মাস তদন্ত করেও বার করতে পারেননি সাবমেরিনের ক্যাপ্টেন গ্রেগরি কেরচার।

তাই ২০১৮ সালের আগস্টে তাকে সরিয়ে দেয়া হয়। পরে আরও দুই নাবিককে সরিয়ে দেয়া হয় এবং ঘটনাটিকে গুরুত্ব না দেয়ার জন্য কয়েকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে মিলিটারি.কমের রিপোর্টে জানানো হয়েছে।

আমেরিকার সাবমেরিন ফোর্সের কমান্ডার রিচার্ড মিলিটারি.কমকে বলেছেন, ‘এই ঘটনা যে ফের ঘটবে না তা নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। তবে ফোর্সের মধ্যে আচরণ এবং চরিত্রের মানোন্নয়ন করা হবে, এটা নিশ্চিত।’

এমআর/আইএম

 

উত্তর আমেরিকা: আরও পড়ুন

আরও