বাংলাদেশী আকায়েদ যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসবাদে দোষী সাব্যস্ত

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

বাংলাদেশী আকায়েদ যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসবাদে দোষী সাব্যস্ত

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৩৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ০৭, ২০১৮

বাংলাদেশী আকায়েদ যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসবাদে দোষী সাব্যস্ত

যুক্তরাষ্ট্রের আদালত বাংলাদেশি যুবক আকায়েদ উল্লাহকে সন্ত্রাসবাদের ছয় অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছে ।নিউ ইয়র্কের বাস টার্মিনালে আত্মঘাতী বিস্ফোরণের চেষ্টার সময় আহত অবস্থায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন আকায়েদ।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এক সপ্তাহ শুনানির পর মঙ্গলবার ফেডারেল আদালতের গ্র্যান্ড জুরি আকায়েদকে দোষী সাব্যস্ত করে। যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী এসব অপরাধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে ২৮ বছর বয়সী এই তরুণের।

এর আগে গতবছরের ১১ ডিসেম্বর নিজের শরীরে বাঁধা ‘পাইপ বোমায়’ বিস্ফোরণ ঘটান আকায়েদ। সকালে অফিসগামী যাত্রীদের ব্যস্ততার মধ্যে টাইম স্কয়ার সাবওয়ে স্টেশন থেকে ম্যানহাটনের পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালে যাওয়ার সংকীর্ণ ভূগর্ভস্থ পথে এ বোমার বিস্ফোরণ ঘটনানো হয়।

তবে সে সময় বোমাটি ঠিকমত বিস্ফোরিত না হওয়ায় প্রাণে বেঁচে যাওয়া আকায়েদ গুরুতর আহত হন। সেই বিস্ফোরণে তিন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছিলেন।

তাকে গ্রেপ্তারের পর নিউ ইয়র্ক পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ইসলামিক স্টেটের (আইএস) মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়ে তিনি হামলা চালানোর চেষ্টা করেন বলে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন।

চলতি বছর ১০ জানুয়ারি ম্যানহাটনের ফেডারেল কোর্টের গ্র্যান্ড জুরি আকায়েদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর পক্ষে মত দেয়।

আসামিপক্ষের আইনজীবী জুলিয়া গাটো শুনানিতে দাবি করেন, আকায়েদ কখনোই আইএস  সদস্য ছিলো না। ‘হতাশাগ্রস্ত’ ওই তরুণ বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিলেন আত্মহত্যা করার জন্য।

অন্যদিকে প্রসিকিউটররা ওই দাবি প্রত্যাখ্যান করে আদালতে বলেন, আকায়েদ তার  শরীরে এমনভাবে বোমা বেঁধেছিলেন, যাতে অন্যদেরও ক্ষতি হয়। আর তিনি যে ইন্টারনেটে আইএস এর কর্মকাণ্ডের খোঁজখবর রাখতেন, সেই প্রমাণ তার কম্পিউটারেই পাওয়া গেছে। 

শুনানি শেষে মঙ্গলবার ছয়টি অভিযোগেই আকায়েদকে দোষী সাব্যস্ত করে গ্র্যান্ড জুরি। তবে তার সাজা কবে ঘোষণা করা হবে, সেই তারিখ আদালত এখনও জানায়নি।

এআরই