নিকির পদে কি মেয়েকে বসাচ্ছেন ট্রাম্প?

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

নিকির পদে কি মেয়েকে বসাচ্ছেন ট্রাম্প?

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০১৮

নিকির পদে কি মেয়েকে বসাচ্ছেন ট্রাম্প?

জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন দূত নিকি হ্যালি কয়েক দিন আগে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। কেন পদত্যাগ করছেন- প্রযুক্তির এই যুগে সেটা হয়তো আগেই জেনে গেছেন সবাই। আপাতত নতুন খবর হলো- ওই শূন্য পদে নাকি নিজের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে বসানোর চেষ্টা করছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে চলতি বছরের শেষে ইস্তফা দেবেন বলে ঘোষণা করেছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কূটনীতিক নিকি হ্যালি। ট্রাম্পের প্রশাসনেও আর থাকবেন না তিনি। নিকির এই হঠাৎ ঘোষণার পর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, এবার কে? ২৪ ঘণ্টা পেরোনোর আগে ট্রাম্প নিজেই বলে বসলেন, ‘ইভাঙ্কা যদি যায়, আমি নিশ্চিত সেটা একটা মারকাটারি ব্যাপার হবে।’

তাহলে কি নিকির বদলি হিসেবে নিজের দ্বিতীয় সন্তানকেই বেছে নিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট? এটা কি পক্ষপাত হলো না! সাংবাদিকদের মধ্যে সবে যখন এসব নিয়ে চাপা গুঞ্জন শুরু হয়েছে, তার মধ্যেই ফের মুখ খুললেন ট্রাম্প। বললেন, ‘ওই পদে ইভাঙ্কাই যোগ্যতম। তবে তার মানে এটা নয় যে, ওকেই বেছে নিচ্ছি। তা হলে তো আবার স্বজনপোষণের অভিযোগ উঠবে।’

ট্রাম্প জানান, নিকির সঙ্গে আলোচনা করেই দুই তিন সপ্তাহের মধ্যেই নাম ঘোষণা করা হবে।

কলকাতার আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের সঙ্গেই যৌথ সাংবাদিক বৈঠক করে ইস্তফার কথা জানান নিকি। তাকে নিজের টিমের ‘কর্মনিষ্ঠ সদস্য’ এবং ‘সম্পদ’ বলে পিঠ চাপড়ান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। পাল্টা সৌজন্যে ট্রাম্প ও তার মেয়ে ইভাঙ্কা এবং জামাতা জারেড কুশনারকেও প্রশংসায় ভরিয়ে দেন নিকি। তাই ইভাঙ্কার জাতিসংঘে যাওয়া নিয়ে তখন থেকেই একটা জোর আলোচনা শুরু হয়েছিল মার্কিন কূটনীতিক মহলে।

ইভাঙ্কা অবশ্য জানিয়েছেন, তিনি ওই দায়িত্ব পালনে আগ্রহী নন। বাবা মুখ খোলার পর পরই মেয়ে টুইটারে লেখেন, ‘হোয়াইট হাউজে কাজ করাটা অত্যন্ত গর্বের। আশা করব, নিকির পর যোগ্য কেউ যাবেন জাতিসংঘে। আমি আগ্রহী নই।’

আরপি