মার্কিন গোয়েন্দাদের ভাষ্য- ওয়াশিংটনকে ধোকা দিচ্ছে পিয়ংইয়ং

ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৫

মার্কিন গোয়েন্দাদের ভাষ্য- ওয়াশিংটনকে ধোকা দিচ্ছে পিয়ংইয়ং

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:৩৩ অপরাহ্ণ, জুন ৩০, ২০১৮

print
মার্কিন গোয়েন্দাদের ভাষ্য- ওয়াশিংটনকে ধোকা দিচ্ছে পিয়ংইয়ং

পারমাণবিক অস্ত্র সমৃদ্ধকরণ বন্ধের প্রতিশ্রুতি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নিলেও উত্তর কোরিয়া তা অব্যাহত রেখেছে এবং এর মাধ্যমে পিয়ংইয়ং ওয়াশিংটনকে ধোকা দিচ্ছে। মার্কিন গোয়েন্দারা সর্বশেষ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে এমন তথ্য পেয়েছেন বলে এনবিসি নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করা অন্তত পাঁচ মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই প্রতিবেদন তৈরি করেছে এনবিসি। শুক্রবার প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে।

মার্কিন গণমাধ্যমটি বলছে, গোয়েন্দাদের তথ্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবির বিপরীত দিকে ইঙ্গিত করছে। কারণ গত ১২ জুন সিঙ্গাপুরে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ঐতিহাসিক বৈঠকের পর ট্রাম্প বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার কাছে থেকে আর কোনো পরমাণু অস্ত্রের হুমকি নেই’।

মার্কিন ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, উত্তর কোরিয়া যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও সাম্প্রতিক মাসগুলোতে পরমাণু অস্ত্রের জ্বালানি ইউরেনিয়ামের উৎপাদন বাড়িয়েছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা আরো বলছেন, ইয়ংবিয়নে উত্তর কোরিয়ার প্রকাশ্য যে পারমাণবিক স্থাপনা রয়েছে, তার বাইরে আরো একাধিক পারমাণবিক স্থাপনা রয়েছে। 

এক কর্মকর্তা এনবিসিকে বলেছেন, ‘একেবারে স্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে যে, তারা (উত্তর কোরিয়া) যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ছলনা করছে।’

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, এনবিসির ওই প্রতিবেদনের ব্যাপারে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে সিআইএ। স্টেট ডিপার্টমেন্ট বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। সেইসঙ্গে গোয়েন্দা বিষয়ে কোনো মন্তব্যও করেনি। আর হোয়াইট হাউজের কাছে মন্তব্য চাওয়া হলে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

রয়টার্স বলছে, ট্রাম্প ও কিমের বৈঠকের আগে উত্তর কোরিয়া তার পারমাণবিক কর্মসূচি সম্পূর্ণরূপে পরিত্যাগের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, এনবিসির এই প্রতিবেদনের কারণে সে প্রতিশ্রুতি সম্পর্কে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

তবে এক সিনিয়র মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এনবিসি বলেছে, দুই নেতার বৈঠকের আগে পিয়ংইয়ং যে পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে তা অপ্রত্যাশিত ছিল। আর প্রকৃত ব্যাপার হলো, দুই পক্ষের মধ্যে যে আলোচনা চলছে তা ইতিবাচক পদক্ষেপ।

তবে তিনি এও বলেন, ‘স্থাপনা, অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্রের সংখ্যা নিয়ে আমাদের ধোকা দেওয়ার প্রচেষ্টা চলছে......আমরা বিষয়টি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।’

আরপি

 
.

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ




আলোচিত সংবাদ