রাজকীয় বিয়ের আগে ‘ভুয়া ছবি’ কেলেঙ্কারিতে মেগানের বাবা!

ঢাকা, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ | ৩ ভাদ্র ১৪২৫

রাজকীয় বিয়ের আগে ‘ভুয়া ছবি’ কেলেঙ্কারিতে মেগানের বাবা!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:০৬ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০১৮

print
রাজকীয় বিয়ের আগে ‘ভুয়া ছবি’ কেলেঙ্কারিতে মেগানের বাবা!

আর মাত্র এক সপ্তাহ পর মার্কিন তারকা মেগান মার্কেলের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে যাচ্ছেন ব্রিটিশ যুবরাজ হ্যারি। এর ঠিক আগেভাগে রাজকীয় বিয়ে উপলক্ষে ‘সাজানো’ ছবি প্রকাশের কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়েছেন মেগানের বাবা থমাস মার্কেল।

গত কয়েক দিনে বিভিন্ন ট্যাবলয়েড পত্রিকা, ম্যাগাজিন ও ওয়েবসাইটে থমাস মার্কেল ব্রিটিশ রাজপরিবারের সাথে আত্মীয়তা শুরুর প্রস্তুতি কীভাবে নিচ্ছেন তা নিয়ে কিছু ছবি প্রকাশিত হয়। ওইসব ছবি পত্রিকাগুলো কয়েক লাখ ডলারে কিনে নিয়েছিল।

একটি ছবিতে দেখা যায় থমাস মার্কেল একটি ইন্টারনেট ক্যাফেতে তার মেয়ে ও প্রিন্স হ্যারির ছবি ব্রাউজ করছেন। আরেকটি ছবিতে দেখা যায় তিনি কফিশপে বসে ব্রিটেনের দর্শনীয় স্থানগুলো নিয়ে লেখা একটি বই পড়ছেন। অন্য একটি ছবিতে দেখা যায় মেয়ের বিয়ের জন্য স্যুট বানাতে দর্জির কাছে মাপ দিচ্ছেন থমাস।

আপাত দৃষ্টিতে থমাসের সাবলীল আচরণের এসব ছবি তার অজ্ঞাতে তোলা হয়েছিল বলে মনে হলেও এগুলো মোটেও সেরকম ভাবে তোলা হয়নি।

ডেইল মেইল ওই সাইবার ক্যাফের সিসিটিভি ফুটেজের যে ছবি প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে থমাস মার্কেল ও ফটোগ্রাফার রায়নার ছবির জন্য কীভাবে পোজ দেয়া যায় তা ঠিক করছেন।

ছবিতে যে ব্যক্তিকে স্যুটের মাপ নিতে দেখা যাচ্ছে, সে প্রকৃতপক্ষে বিভিন্ন পার্টি বা অনুষ্ঠানের সরঞ্জামাদির দোকানের কর্মচারী এবং যে ফিতা দিয়ে সে নিচ্ছে তা থমাস নিজেই সরবরাহ করেছিলেন বলে জানিয়েছে পত্রিকাটি।

সিসিটিভির তথ্য অনুযায়ী ওইসব ছবি গত মার্চ মাসে তোলা হয়েছিল, কিন্তু সেগুলো প্রকাশ করা হয় মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে।

ইন্টারনেট ক্যাফের ম্যানেজার জেসিকা আনায়া পত্রিকাকে জানান, ‘ওরা বেশিক্ষণ থাকেননি। দশ মিনিট মতন থেকে আবার একসাথে বেরিয়ে যান। আমার কাছে এটা ছবি তোলার জায়গা হিসেবে অদ্ভুত মনে হয়েছিল।’

‘উনি আগে কখনও আসেননি, আমিও উনাকে চিনতাম না। তার সাথে একজন ফটোগ্রাফার ছিল। ওরা টাকা দিয়ে কম্পিউটার ব্যবহার করছিলেন, আর ফটোগ্রাফার পিছনে বসে ছবি তুলছিল,’ জানান জেসিকা।

কয়েক সপ্তাহ আগে কেন্সিংটন প্যালেস একটি বিবৃতিতে থমাস মার্কেলের ব্যক্তিগত গোপনীয়তাকে সম্মান জানানোর জন্য সবার প্রতি অনুরোধ জানান। পাপারাজ্জিরা তার ব্যক্তিগত জীবনে উৎপাত  করছে বলে থমাস অভিযোগ করলে এই বিবৃতি জারি করে কেন্সিংটন প্যালেস।

এখন থমাস নিজেই পাপারাজ্জিদের সাজানো ছবির জন্য পোজ দিচ্ছেন এই খবর রাজপরিবারের জন্য দারুন বিব্রতকর হয়ে উঠেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র যুক্তরাজ্যের দ্য টেলিগ্রাফকে জানিয়েছে কেন্সিংটন প্যালেস থমাস মার্কেলকে সমর্থন দেবে এবং, ‘তার নিরাপত্তা ও সুরক্ষার জন্য মিডিয়ার সাথে মধ্যবর্তিতা করে যাবে।’

৭৩ বছর বয়সী থমাস মার্কেল হলিউডে একজন লাইটিং ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করতেন। বাবা-মায়ের সাথে মেগানের সম্পর্ক খুব আগে থেকেই জটিল বলে জানিয়েছে কয়েকটি পত্রিকার রিপোর্ট। এমনকি বিয়ের অনুষ্ঠানে মেয়ের পাশে তিনি উপস্থিত থাকবেন কিনা তা নিয়েও ছিল সংশয়।

কিন্তু এ মাসের শুরুতে নিশ্চিত করা হয় হ্যারি -মেগানের বিয়েতে উপস্থিত থাকবেন থমাস মার্কেল।

এমআর/এএসটি

 
.


আলোচিত সংবাদ