ঘুষ ছাড়াই বেতন পেলো ২৯ সিএইচসিপি

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬

ঘুষ ছাড়াই বেতন পেলো ২৯ সিএইচসিপি

জেলা প্রতিনিধি ১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৮, ২০১৬

ঘুষ ছাড়াই বেতন পেলো ২৯ সিএইচসিপি

ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলা হিসাব রক্ষক অফিসে ঘুষ না দেয়ায় নানা অজুহাতে উপজেলায় ২৯ জন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারদের (সিএইচসিপি) ৫ মাসের বেতনের ফাইল সই করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। অবশেষে ১১ দিন পর সোমবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কুদ্দূসের হস্তক্ষেপে ৫ মাসের বেতন ছেড়ে দেওয়া হয়।

সিএইচসিপিরা অভিযোগ করে বলেন, তাদের ৫ মাসের বেতন আসে ১৬ তারিখে। তারা হিসারক্ষক অফিসে আসলে উপজেলা সহকারী অডিটর মো. হোসেন তাদের প্রত্যেকের কাছে ৫০০ টাকা করে ঘুষ দাবি করেন। তার দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় তাদেরকে নানা অজুহাতে ঘুরাতে থাকেন। যার কারণে তারা পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন।

সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কুদ্দূসকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি তাৎক্ষণিক তাদের বেতন ভাতার বিলের ব্যবস্থা করে দেন। এতে সিএইচসিপিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ধন্যবাদ জানান।

অন্যদিকে জানা গেছে হিসাব রক্ষক অফিসে ঘুষ ছাড়া কোনো ফাইলে সই হয় না। অবসরে যাওয়ার পর দিনের পর দিন এ অফিসের বাড়ান্দায় ঘুরতে হয়। এ অফিসে মানুষ নিরবভাবে হয়রানী শিকার হলেও ফাইল আটকানোর ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। বর্তমান সরকার সকল ক্ষেত্রে দুর্নীতি মুক্ত করলেও এ অফিসের দুর্নীতি মুক্ত করতে আর কত সময় লাগবে সে দিকে তাকিয়ে রয়েছে ভুক্তভোগি মানুষগুলো।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.আব্দুল কুদ্দূস বলেন, সিএইচসিপিদের বেতন নিয়ে সমস্যা ছিল তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যাতে তারা পরিবার পরিজন দিয়ে সুন্দর ভাবে ঈদ উদযাপন করতে পারে।

উপজেলা হিসাব রক্ষক অফিসের সহকারী অডিটর মো.হোসেন তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিলে অথরিটির সমস্যা ছিল। নির্বাহী স্যার বলেছেন আমি বিল ছেড়ে দিয়েছি।

এফএইচ/এইচকে