সনুকে জিম্মায় নিতে পারেনি ভারতীয় হাইকমিশন

ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

সনুকে জিম্মায় নিতে পারেনি ভারতীয় হাইকমিশন

জেলা প্রতিনিধি ৯:৩৬ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০১৬

সনুকে জিম্মায় নিতে পারেনি ভারতীয় হাইকমিশন

ভারতের দিল্লি থেকে অপহরণ হয়ে বরগুনা আসা শিশু সনুকে আইনি জটিলতার কারণে ভারতীয় হাইকমিশনের নিকট হস্তান্তর করা হয়নি। 

বরগুনা জেলা আদালত সোমবার সনুকে ভারতীয় হাইকমিশনের কাছে জিম্মায় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এর আগে রোববার ভারতীয় হাইকমিশনের ফাস্ট সেক্রেটারি রমাকান্ত গুপ্ত সনুকে ভারতীয় হাইকমিশনের জিম্মায় নেওয়ার জন্য বরগুনার শিশু ট্রাইব্যুনালে আবেদন করেন। সোমবার শুনানির জন্য সনুকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালতের বিচারক মুহা. আবু তাহের ভারতীয় হাইকমিশনের প্রতিনিধি রমাকান্ত গুপ্তকে এক লাখ টাকা জামানত দেওয়ার জন্য বললে। তিনি এতে অনাগ্রহ প্রকাশ করেন। তাই সনুকে আদালত জিম্মায় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভারতীয় দূতাবাস নিযুক্ত আইনজীবী সঞ্জিব দাস পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, সনুর ডিএনএ টেস্টের রিপোর্ট দাখিল করি। পরে সনুকে তার বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য আমরা আদালতকে বার বার বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু আদালত আমাদের আর্জি আমলে নেননি। এখন দূতাবাসের পরবর্তী নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা আইনি পদক্ষেপ নেব।

২০১০ সালে ভারতের রাজধানী দিল্লি‘র নিউ সীমাপুর এলাকা থেকে সনুকে  অপহরণ করা হয়। সনুকে দিল্লি থেকে অপহরণ করে রহিমা বেগম ও আকলিমা বেগম নামের দুই বোন। তারা সনুকে অপহরণ করে বাংলাদেশের বরগুনার বেতাগী উপজেলার গেরামর্দন গ্রামে নিয়ে আসেন। রহিমারা সাত বোন। তাদের কয়েকজন বোন দিল্লিতে বাস করেন। তাদের বিরুদ্ধে শিশু পাচারের অভিযোগ রয়েছে।

কেবিএ/এমএ/একে