টেলিভিশন-দৈনিকের অনলাইনেরও অনুমোদন নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

টেলিভিশন-দৈনিকের অনলাইনেরও অনুমোদন নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

সচিবালয় প্রতিবেদক ২:৪০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

টেলিভিশন-দৈনিকের অনলাইনেরও অনুমোদন নিতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, শুধুমাত্র অনলাইন পত্রিকা গুলোতে নয় স্যাটেলাইট টেলিভিশন এবং দৈনিক পত্রিকাগুলোর অনলাইন ভার্সনে ভিডিও পাবলিশ করা হচ্ছে, সেগুলো নিয়েও আমরা আলোচনা করেছি। সেগুলোকেও একটি শৃঙ্খলার মধ্যে আনা হবে। সোমবার সচিবালয়ে তার নিজ দপ্তরে সমসাময়িক বিষয় আলাপকালে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পত্রিকাগুলো পাশাপাশি টেলিভিশনগুলো যে অনলাইন চালু করেছে তার কোনো অনুমোদন তাদেরকে দেওয়া হয়নি। টেলিভিশন এবং পত্রিকাগুলোকে অনলাইন ভার্সন করার কোনো অনুমোদন দেওয়া হয়নি এজন্য তারা এসব প্রচার করতে পারেনা। যদি কেউ প্রচার করতে চায় সেগুলো কি আমরা একটা শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে চাই এবং যথাযথ অনুমোদন নিয়েই সেটি করতে হবে।

টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর যে অনলাইন ভার্সন চালু করেছে সেটির অনুমোদন লাগবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সেটি অবশ্যই লাগবে। যেসব টেলিভিশন অনলাইন ভার্সন চালায় তাদেরকে আমরা অনলাইন ভার্সনের অনুমোদন দেইনি। আমরা স্যাটেলাইট এর অনুমোদন দিয়েছি, ফলে তাদেরকে অনলাইন ভার্সনের অনুমোদন নিয়েই অনলাইন চালাতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, এর আগে একটি খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল, যেসব দৈনিক পত্রিকা মিডিয়াভুক্ত তারা অনলাইন ভার্সন চালাতে পারবে। তবে এটা নিয়ে আমরা চিন্তা করেছি, দৈনিক পত্রিকার অনলাইন ভার্সন প্রচারের ক্ষেত্রেও  একটি নিয়ম নীতির মধ্যে থাকা দরকার।

বিদেশি ডাবিংকৃত সিরিয়াল প্রচারে অনুমোদন লাগবে

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন চ্যানেলে যে বিদেশি ডাবিংকৃত অনুষ্ঠান প্রচার করা হচ্ছে সেগুলোর জন্য আমরা অনুমতি নেওয়া বাধ্যবাধকতা আরোপ করেছি। এগুলো একটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে যাওয়া প্রয়োজন। একটি সিনেমা যেমন মুক্তি পেতে হলে সেন্সরবোর্ড হয়ে আসতে হয়, তেমনি অনেক লম্বা সময় ধরে প্রচারিত হওয়া বিদেশি ডাবিংকৃত সিরিয়াল প্রচারের ক্ষেত্রেও অনুমতির প্রয়োজন আছে। এজন্য আমরা ইতোমধ্যে একটি কমিটি করেছি এসংক্রান্ত গত ২৭ নভেম্বর একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে। সেই কমিটির প্রধান থাকবেন সরকারের একজন অতিরিক্ত সচিব। এই কমিটির সদস্য হিসেবে থাকবেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশিদ, বিশিষ্ট নাট্যজন সারা জাকের, টেলিভিশন ওনার্স এসোসিয়েশনের একজন প্রতিনিধি, অভিনয় শিল্পী সংঘের একজন প্রতিনিধি এখানে থাকবে। একজন উপসচিব এই কমিটির সাচিবিক দায়িত্ব পালন করবেন।

মন্ত্রী বলেন, এখন থেকে যেকোন টেলিভিশনে যদি বিদেশী কোন ডাবিংকৃত সিরিয়াল প্রচার করতে হয়, তাহলে তা এই কমিটির কাছে আসবে। এই কমিটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যাচাই বাছাই করে দেখবে এটি আমাদের দেশে আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপটে, আমাদের নতুন প্রজন্মের মনন তৈরীর প্রেক্ষাপটে, আমাদের সমাজে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া ফেলছে কিনা। এই বিষয়গুলি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অনুমোদন দিলেই তা প্রচারিত হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আপনারা জানেন মোবাইল কোম্পানিগুলো নানা ভিডিও কনটেন্ট আপলোড করে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়ছে আবার সেখানে বিজ্ঞাপনও নিচ্ছে, এটির লাইসেন্স তাদেরকে দেওয়া হয়নি। তাদেরকে মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিচালনার লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে, তারা যেভাবে ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছে এবং সেখানে আবার বিজ্ঞাপন নিয়ে তারা ব্যবসা করছে। এটির লাইসেন্স তাদেরকে দেওয়া হয়নি। এটি বন্ধ করার জন্য আমরা ইতোমধ্যে টেলিকমিউনিকেশন মিনিস্ট্রিতে চিঠি দিয়েছি, আমরা আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে আলোচনা করেছি। এসব বিষয়কে একটি শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে আমরা বদ্ধপরিকর।

এসএস/এইচকে

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও