বুলবুলে ক্ষতি ২২ হাজার ৮৩৬ হেক্টর জমির ফসল: কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বুলবুলে ক্ষতি ২২ হাজার ৮৩৬ হেক্টর জমির ফসল: কৃষিমন্ত্রী

সচিবালয় প্রতিবেদক ৪:৪৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০১৯

বুলবুলে ক্ষতি ২২ হাজার ৮৩৬ হেক্টর জমির ফসল: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে উপকূলীয় ও পাশের ১৬টি জেলার ১০৩টি উপজেলায় এর প্রভাব পড়েছে। এতে রোপা আমন, শীতকালীন শাক-সবজি, সরিষা, খেসারি, মসুর ও পান ফসলের ক্ষতি হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আবাদকৃত ২০ লাখ ৮৩ হাজার ৮শ ৬৮ হেক্টর জমির মধ্যে ২ লাখ ৮৯ হাজার ৬ হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং মোট ২২ হাজার ৮শ ৩৬ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে যার মূল্যমান ২শ ৬৩ কোটি টাকা।

কৃষিমন্ত্রী মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য দেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘তবে আক্রান্ত জমির পুরো ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। কোনো কোনো জমির ফসল আংশিক ক্ষতি হয়েছে। ধানের বড় অংশটিই পরিপক্ব হয়ে উঠেছিল। পানি নেমে গেলে ক্ষয়ক্ষতির পুরো হিসাব আমরা দিতে পারব।’

তিনি জানান, ‘প্রাথমিক প্রাপ্ত তথ্য মতে, আক্রান্ত ১৬টি জেলা হচ্ছে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, নড়াইল, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর,ঝালকাঠি, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, শরীয়তপুর, নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষীপুর।’

ড. আব্দুর রাজ্জাক জানান, মোট ৫০ হাজার ৫শ ৩ জন কৃষকের ফসল নষ্ট হয়েছে। ফসলের ক্ষয়ক্ষতির মধ্যে রোপা আমন ২ লাখ ৩৩ হাজার ৫শ ৭৪ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ১৬ হাজার ৮শ ৮৪ হেক্টর, সরিষা ১ হাজার ৪শ ৭৬ হেক্টর, খেসারি ৩১ হাজার ৮৮ হেক্টর, মসুর ১শ ৯৫ হেক্টর, পান ২ হাজার ৬শ ৬৩ হেক্টর এবং অন্যান্য ফসল ৩ হাজার ১শ ২৬ হেক্টর।

কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য বর্ধিত প্রণোদনা কর্মসূচির প্রস্তাবনা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। অর্থপ্রাপ্তি সাপেক্ষে অতিদ্রুত প্রণোদনা বাস্তবায়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের লোনের ব্যাপারেও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় কার্য সম্পাদন করা হবে যাতে করে আক্রান্ত কৃষকদের ঋণের ব্যাপারে সহজ শর্ত দেয়।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. আরিফুর রহমান অপু, অতিরিক্ত সচিব (এফএমএম) হাসানুজ্জামান কল্লোল প্রমুখ।

এসএস/এইচআর

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও