মোংলা থেকে ২৮০ কি.মি. দূরে ‘বুলবুল’

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মোংলা থেকে ২৮০ কি.মি. দূরে ‘বুলবুল’

সচিবালয় প্রতিবেদক ২:৪৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

মোংলা থেকে ২৮০ কি.মি. দূরে ‘বুলবুল’

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার এনামুর রহমান বলেছেন, ধোঁয়াশা ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বাংলাদেশের মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে।

শনিবার সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য দেন।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে (১২টা পর্যন্ত) চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিম এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল সংশ্লিষ্ট ১৩টি উপকূলীয় জেলা ও এর অন্তর্ভুক্ত উপজেলায় কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা-উপজেলায় এ বিষয়ে সতর্কতামূলক প্রচার কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে উপকূলীয় ৭টি জেলা খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়খালী, ভোলা এবং পিরোজপুরে ২ হাজার করে মোট ১৪ হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেট এবং নগদ ১০ লাখ করে মোট ৭০ লাখ টাকা, ২ শত মেট্রিকটন করে ১৪ শত মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এ ছাড়া নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলাসমূহে ৫ লাখ করে মোট ৩০ লাখ টাকা, ১ শত মে. টন করে মোট ৬ শত মে. টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, খুলনা, সাতক্ষীরা, পিরোজপুর, বরগুনা, বরিশাল, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, ভোলা ও বাগেরহাটসহ ৯টি জেলার প্রতিটিতে এক লাখ টাকা করে গোখাদ্য বাবদ এবং এক লাখ টাকা করে শিশু খাদ্য বাবদ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী আরো বরাদ্দ দেয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপকূলীয় ১৩টি জেলায় ৭টি জোনের ৪১টি উপজেলার ৩৫০টি ইউনিয়নের ৩ হাজার ৬৮৪টি ইউনিটে সর্বমোট ৫৫ হাজার ৫১৫ জন স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্ক বার্তা প্রচার শুরু করা হয়েছে, যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। সকল জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দূর্গম এলাকা থেকে জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার জন্য নৌকা, ট্রলারসহ প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

এসএস/আরপি

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও