‘বুলবুল’ মোকাবেলায় সরকারের প্রস্তুতির বর্ণনা দিলেন প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

‘বুলবুল’ মোকাবেলায় সরকারের প্রস্তুতির বর্ণনা দিলেন প্রতিমন্ত্রী

সচিবালয় প্রতিবেদক ২:১৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

‘বুলবুল’ মোকাবেলায় সরকারের প্রস্তুতির বর্ণনা দিলেন প্রতিমন্ত্রী

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার এনামুর রহমান বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় আগাম সতর্কতা, করনীয় ও প্রস্তুতি বিষয়ক এক সভা আমরা গতকাল করেছি। সে বিষয়ে আপনাদেরকে গতকাল ব্রিফ করা হয়েছে। উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষজন ও তাদের গবাদিপশু যেন নিরাপদে সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নিতে পারে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

শনিবার সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ঘুর্ণিঝড় বুলবুল সংশ্লিষ্ট ১৩ টি উপকূলীয় জেলা ও এর অন্তর্ভুক্ত উপজেলায় কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা-উপজেলায় এ বিষয়ে সতর্কতামূলক প্রচারনা কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে ।

ইতিমধ্যে উপকূলীয় ৭টি জেলা খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়খালী, ভোলা এবং পিরোজপুরে ২  হাজার করে মোট ১৪ হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেট এবং নগদ ১০ লাখ করে মোট ৭০ লাখ টাকা, ২ শত মেট্রিকটন করে ১৪শত মেঃ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলাসমূহে ৫ লাখ করে মোট ৩০ লাখ টাকা, ১ শত মেঃ টন করে মোট ৬ শত মেঃ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও খুলনা, সাতক্ষীরা, পিরোজপুর, বরগুনা, বরিশাল, ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, ভোলা ও বাগেরহাটসহ ৯টি জেলার প্রতিটিতে এক লাখ টাকা করে গোখাদ্য বাবদ এবং এক লাখ টাকা করে শিশু খাদ্য বাবদ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী আরো বরাদ্দ দেয়া হবে ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপকূলীয় ১৩টি জেলায় ৭টি জোনের ৪১টি উপজেলার ৩৫০টি ইউনিয়নের ৩ হাজার ৬৮৪টি ইউনিটে সর্বমোট ৫৫ হাজার ৫১৫ জন স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্ক বার্তা প্রচার শুরু করা হয়েছে, যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। সকল জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দূর্গম এলাকা থেকে জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার জন্য নৌকা, ট্রলারসহ প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা  হয়েছে।

বেড়িবাঁধ, ফসল, গবাদিপশু, মৎস্য সম্পদ ইত্যাদি ক্ষয়ক্ষতি রোধে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল থেকে নিজের ও পরিবারের জীবন / সম্পদ রক্ষার জন্য শনিবার দুপুর ২ টার মধ্যে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় , দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর ও সিপিপির সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর ০৩ দিনের ছুটি ইতোমধ্যে বাতিল করা হয়েছে। আর্মড ফোর্সেস ডিভিশনকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। তথ্য মন্ত্রণালয় ঘূর্ণিঝড় সম্পর্কিত বুলেটিন ও সংকেতসমূহ সরকারী ও বেসরকারী রেডিও ও টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে ঘন ঘন প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। জননিরাপত্তা বিভাগ এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থানরত নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

এসএস/জেডএস

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও