ভুয়া এনআইডিতে চলছে জমি রেজিস্ট্রি, নির্বিকার মন্ত্রণালয়

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ভুয়া এনআইডিতে চলছে জমি রেজিস্ট্রি, নির্বিকার মন্ত্রণালয়

মো. হুমায়ূন কবীর ৯:০৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৫, ২০১৯

ভুয়া এনআইডিতে চলছে জমি রেজিস্ট্রি, নির্বিকার মন্ত্রণালয়

মোবাইল ফোনের সিম নিবন্ধন, পাসপোর্ট, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, বিমা থেকে শুরু করে প্রায় সব কাজেই জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) লাগছে। আর এসব কাজ করতে আসা লোকদের এনআইডি যাচাই করে দেখা হচ্ছে না যে সেটা সঠিক কি না।

তেমনি জমি রেজিস্টেশনের সময় উল্লেখ করা এনআইডি কার্ড যাচাই করারও সুযোগ রাখেনি ভূমি মন্ত্রণালয়। আর এ সুযোগ নিচ্ছে সুযোগ সন্ধানীরা।

ভুয়া এনআইডি বানিয়ে জমি রেজিস্ট্রি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) বেশকিছু অভিযোগ এসেছে।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি এ সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে ইসিতে আসেন চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের বাসিন্দা জিলহাজ উদ্দিন। তিনি একটি দলিলের কপি নিয়ে ইসিতে আসেন ওই দলিলে ব্যবহৃত ব্যক্তির এনআইডি সঠিক কি না তা যাচাই করার জন্য। মোহাম্মদ সেলিম, বাবার নাম নুরুল ইসলাম উল্লেখ করে দলিলে ১৯৫৮১৫১৫৩৭৭৪৬১৪৭০ এই এনআইডি নম্বর জমি রেজিস্ট্রিতে ব্যবহার করেছেন। এটি যাচাই করে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি বলে জানায় কমিশন।

এ বিষয়ে কথা হলে এনআইডিটি যাচাই করতে আশা জিলহাজ উদ্দিন পরিবর্তন ডটকমকে জানান, এই এনআইডি যে ব্যক্তির বলে উল্লেখ করে জমিটি রেজিস্ট্রি করা হয়েছে, ওই ব্যক্তি আগে বাংলাদেশে থাকলেও তিনি এখন ভারতীয় নাগরিক। আমাদের জানা মতে, তিনি বাংলাদেশে ভোটার হননি। তাই নির্বাচন কমিশনে এসেছিলাম তথ্য যাচাই করতে। যাচাই করে কমিশন থেকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে যে, জাতীয় তথ্য ভাণ্ডারে ওই এনআইডির কোনো তথ্য নেই।

সম্প্রতি রাজধানী গুলশানে ভুয়া এনআইডি বানিয়ে একজনের জমি আরেকজন বিক্রি করার অভিযোগও নির্বাচন কমিশনে এসেছে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে কথা হলে ইসির যুগ্ম-সচিব ও জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের পরিচালক (অপারেশন্স) মো. আবদুল বাতেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমরা বেশকিছু ভুয়া এনআইডি বানিয়ে জমি রেজিস্ট্রি করার অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত এনআইডি যাচাই করার বিষয়ে ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে আমাদেরকে কিছু জানানো হয়নি।’

আপনারা কমিশন থেকে ভূমি মন্ত্রণালয়কে এনআইডি যাচাইয়ের বিষয়ে কোনো পরামর্শ দেবেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা কিছু বলবো না। ভূমি মন্ত্রণালয় চাইলে এ সেবা নিতে পারে।’

ভূমি মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা সৈয়দ মো. আব্দুল্লাহ আল নাহিয়ান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘জমি রেজিস্ট্রেশনে জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করতে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে বলে আমার জানা নেই। সচিব স্যারের সঙ্গে কথা বলেন। স্যার ভালো বলতে পারবেন।’

এ বিষয়ে ভূমি সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটোয়ারীর সঙ্গে ফোনে কথা বলতে চাইলে তিনি মিটিংয়ে আছি, কথা বলতে চাইলে আমার অফিসে আসেন বলে ফোন রেখে দেন।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, ‘নাগরিকদের তথ্য স্বচ্ছতায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে ২০১২ সাল থেকে জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য যাচাইয়ের সুবিধা দিচ্ছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে ১১৮টি প্রতিষ্ঠান ইসি থেকে এ সেবা নিচ্ছেন। এর মধ্যে ২৩টি সরকারি প্রতিষ্ঠান, ৬টি মোবাইল কোম্পানি, ৫৭টি বাণিজ্যিক ব্যাংক, ২৫টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ৩টি বিমা কোম্পানি রয়েছে।

এইচকে/এইচআর

 

পরিবর্তন বিশেষ: আরও পড়ুন

আরও