ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে মাস্টারপ্লান নেয়া হচ্ছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে মাস্টারপ্লান নেয়া হচ্ছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

সচিবালয় প্রতিবেদক ৬:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৯

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে মাস্টারপ্লান নেয়া হচ্ছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘এডিস মশা নিধনে আমরা সিটি কর্পোরেশনকে মাস্টার প্লান হাতে নিতে বলেছি। তাদের লোকবল বাড়ানোর কথা বলেছি। যারা শুধুমাত্র মশা নিধনের জন্য কাজ করবে।’

রোববার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জেলা পরিষদ সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন ইতোমধ্যে যেসব অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে তার আলোকে আগামীতে এরকম কোনো পরিস্থিতি যাতে মোকাবেলা করতে না হয় সেজন্য পূর্ব প্রস্তুতির জন্য একটা মাস্টারপ্লান তৈরি করতে বলা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘সেই প্লানে থাকবে কোথায় কোথায় এডিস মশা জন্ম হয়, কোথায় অন্যান্য মশা জন্ম হয় এবং কোথায় কী ধরনের উদ্যোগ নিতে হবে তার জন্য পরিষ্কার পরিকল্পনা নিতে বলা হয়েছে সিটি কর্পোরেশনকে। আমরা একটি কমপ্রিহেনসিফ প্রোগ্রাম নিয়ে কাজ করছি।’

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৩৮ কোটি মানুষের মধ্যে ১০ লাখ মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছিল কয়েক বছর আগে। সেখানে এক হাজার মানুষ মারা যায়। এভাবে কলকাতায় কয়েক হাজার মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। স্বাভাবিকভাবেই তাদের অভিজ্ঞতা আমাদের থেকে বেশি হবে।’

ডেঙ্গু ইস্যুতে পরবর্তী প্রক্রিয়া কী- এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘এবার যেভাবে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে এটা আগে কখনও হয়নি। স্বাভাবিকভাবে এবার আমাদের অভিজ্ঞতা অনেক বেড়েছে। আমরা ইনটেনসিভলি কাজ করতে গিয়ে যেসব জায়গায় ঘাটতি আছে সেগুলো নির্ণয় করতে সক্ষম হয়েছি। এখান থেকে আমরা বুঝতে পেরেছি এটা কোনো সিজনাল প্রোগ্রাম নয়, এ বিষয়ে বছরজুড়েই আমাদের কর্মকাণ্ড হাতে নিতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘শুকনা মৌশুমে এডিস মশা ডিম ছাড়লেও তা ফোটে না। ফলে সেই সময় এডিস মশার লার্ভা হবে না। সে কারণে আমরা একটি দীর্ঘমেয়াদী একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করবো, কোন মাসে কত বেশি কাজ আমাদের করতে হবে। যারা ইতোমধ্যে এডিস মশা নিধনে অনেকটা সফল হয়েছে তাদের অভিজ্ঞতাগুলো আমরা প্রতিনিয়ত কালেক্ট করছি। ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি সেল করা হয়েছে তারা রেগুলারলি মনিটরিং করছে।’

সমবায়মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে আমরা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়োজিত করেছি। এখানে যুগ্মসচিব পদমর্যাদার অনেক অফিসার আছেন, তারা সবাই স্থানীয় প্রতিনিধিদের সঙ্গে করে এডিশনাল ওয়ার্ক করছেন।’

মন্ত্রী এসময় বলেন, ‘এবার আমাদের নতুন নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন হয়েছে। আমরা দেখেছি এটা শুধুমাত্র বাংলাদেশে নয়, সারা পৃথিবীতেই আক্রমণের মাত্রা অনেক বেশি। এর আগে ২০০০ সালে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যার তুলনায় মৃত্যের হার ছিল বেশি, কিন্তু এখন আক্রান্ত্রের সংখ্যা বেশি হলেও সচেতনতার ফলে তুলনামূলক মৃত্যের সংখ্যা কম হয়েছে।’  

এসএস/এইচআর

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও