মুখ খুলেই প্রিয়া জানালেন, কিভাবে তিনি আমেরিকায়

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

মুখ খুলেই প্রিয়া জানালেন, কিভাবে তিনি আমেরিকায়

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০১৯

মুখ খুলেই প্রিয়া জানালেন, কিভাবে তিনি আমেরিকায়

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলা কথা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে প্রথম মুখ খুললেন প্রিয়া সাহা। একই সঙ্গে তিনি কিভাবে যুক্তরাষ্ট্রের ওই অনুষ্ঠানে গেছেন, তার বিস্তারিত জানিয়েছেন।

রোববার প্রিয়া সাহার এনজিও ‘সারি বাংলাদেশ’র ইউটিউব চ্যানেলে দেয়া ভিডিওতে তিনি এসব জানিয়েছেন।

সেখানে দু’জনের কথোপকথনে প্রিয়া সাহা অনেক প্রশ্নের জবাব দেন। এমনই এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাকে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রে পাঠাইনি। আইআর থেকে সরাসরি আমাকে ই-মেইল ও ফোন করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট আমন্ত্রণ জানিয়ে নিয়ে এসেছে।’

আরেক প্রশ্নের উত্তরে প্রিয়া সাহা বলেন, ‘রানা দাশ গুপ্ত কিংবা কাজল দেবনাথ (ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা)- কেউই জানেন না আমি এখানে এসেছি। আর আমি যে আসব, আগের দিনও তা জানতে পারিনি। বলতে পারেন হঠাৎ করেই চলে এসেছি।’

তিনি বলেন, ‘ওই অনুষ্ঠানের জন্য গত ১৪ জুন আমাকে ই-মেইল করা হয়। শুরুতে আমি ওভাবে সাড়া (রেসপন্স) দেইনি। পরে তারা বারবার ই-মেইল ও সরাসরি যোগাযোগ করে। তারপর ১৫ জুলাই সন্ধ্যায় বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা দিয়েছি।’

প্রিয়া সাহা আরও বলেন, ‘আমি আগেও বহুবার যুক্তরাষ্ট্রে এসেছি। দেশটির সরকারের স্কলারশিপে ২০১৪ সালে, উইমেন লিডারশিপ বিষয়ে আইভিএলপি (ইন্টারন্যাশনাল ভলান্টিয়ার লিডারশিপ প্রোগ্রাম) প্রশিক্ষণে এসেছি। এই প্রোগ্রামে জাতির জনক থেকে শুরু করে বাংলাদেশের স্পিকারও (ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী) এসেছেন।’

গত ১৭ জুলাই ওভাল হাউসে এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জানান, বাংলাদেশের মৌলবাদী মুসলিমরা তার জমি কেড়ে নিয়েছে, বাড়িঘরে আগুন দিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ খ্রিস্টান সম্পদায়ের মানুষ গুম রয়েছেন। আরও ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছেন, যারা দেশটিতে থাকতে চান।’

এ সময় প্রিয়া সাহা এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে সাহায্যও চান।

প্রিয়া সাহার বাড়ি পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নের চরবানিরী গ্রামে। তার স্বামী মলয় সাহা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক।

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা জাতীয় মহিলা ঐক্য পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ‘সারি বাংলাদেশ’ নামের এনজিও চালান তিনি।

প্রিয়া সাহাকে ঐক্য পরিষদের প্রতিনিধি হিসেবে পাঠানোর কথা সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশ গুপ্ত অস্বীকার করেছেন।

তবে আয়োজক সংগঠন ফ্রিডম হাউজের ওয়েবসাইটে প্রিয়া সাহার পরিচয় হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নামেই রয়েছে।

সেখানে ধর্মীয় কারণে নিপীড়নের শিকার ২৭ জনের মধ্যে যে ২৪ ব্যক্তির তালিকা, তাতে প্রিয়া সাহা ১৮ নম্বরে।

তার নামের পাশে পরিচয় হিসেবে লেখা, ‘বাংলাদেশ থেকে আসা একজন হিন্দু, যিনি বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক।’

আইএম

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও