প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়াকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলছেন ড. মিজান

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়াকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলছেন ড. মিজান

পরিবর্তন ডেস্ক ২:০২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০১৯

প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়াকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলছেন ড. মিজান

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় বাংলাদেশের সংখ্যালঘু নিয়ে যে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করেছেন তা নিয়ে দেশব্যাপী সমালোচনা, নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় বইছে।

তবে প্রিয়া সাহার ওই বক্তব্যের যে প্রতিক্রিয়া হচ্ছে তাকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলে মনে করছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান। আর বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের শীর্ষ নেতা কাজল দেবনাথ প্রিয়া সাহার বক্তব্যের একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন।

এ নিয়ে গতকাল শনিবার একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলে।

গণমাধ্যমটি বলছে, প্রিয়া সাহার বক্তব্য নিয়ে যে প্রতিক্রিয়া হয়েছে তাকে ‘বাড়াবাড়ি’ মনে করছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান৷

তিনি বলেন, ‘‘তিনি (প্রিয়া সাহা) হয়তো ডিসপ্লেসড বলতে গিয়ে ডিসঅ্যাপিয়ার্ড বলেছেন৷ এ ধরনের ভুল আমাদেরও হতে পারে৷ তাই এটা নিয়ে এখন যা হচ্ছে তা আমার কাছে অনেক বাড়াবাড়ি মনে হয়েছে৷''

তিনি (ড. মিজান) বলেন, ‘‘আমাদের রিঅ্যাকশনগুলো হঠকারিতার শামিল হয়ে যাচ্ছে৷ এত বেশি রিঅ্যাকশন দেখানোর কিছু নেই৷”

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার এমন দেশ বা সম্প্রদায়ের ২৭ প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখানে ১৬টি দেশের প্রতিনিধি অংশ নেন। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান।

প্রিয়া সাহা ট্রাম্পকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান নিখোঁজ রয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে সহায়তা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।’

এর পর তিনি বলেন, ‘এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি।’

ভিডিওতে দেখা গেছে, এক পর্যায়ে ট্রাম্প নিজেই সহানুভূতির সঙ্গে এই নারীর সঙ্গে হাত মেলান।

প্রিয়া সাহা আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যকার কথোপকথন প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকেও তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতও অভিযোগের সত্যতা নেই বলে জানিয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে প্রিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ছাড়া ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন।

আর আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত ঢাকা ও ঢাকার বাইরে প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে পাঁচটি রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়েছে।

ওএস/আরপি

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও