হঠাৎ মিন্নি কেন পুলিশ লাইনে, জানালেন বাবা (ভিডিও)

ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

হঠাৎ মিন্নি কেন পুলিশ লাইনে, জানালেন বাবা (ভিডিও)

বরগুনা প্রতিনিধি ৩:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০১৯

হঠাৎ করে মঙ্গলবার সকালে বরগুনায় দিনে-দুপুরে হত্যাকাণ্ডের শিকার রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে জেলা পুলিশ লাইনে নেয়া হয়।

রিফাতের বাবা সংবাদ সম্মেলন করে মিন্নিকে গ্রেফতার করার দাবি জানানোর দু’দিন পরই এ ঘটনা ঘটে। এরপরই ছড়িয়ে পড়ে মিন্নিকে আটক করা হয়েছে।

তবে মিন্নিকে পুলিশ নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।

পুলিশ লাইনের সামনে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডে জড়িত একজনকে সনাক্ত করার জন্য মিন্নিকে বরগুনার পুলিশ লাইনে আনা হয়। সনাক্তকরণ শেষ হলে সে বাড়ি ফিরে যাবে।’

তবে বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন জানিয়েছেন, রিফাত শরীফ হত্যা মামলার এক নম্বর সাক্ষী মিন্নি। কিছু বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে বরগুনা পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে।

তবে তিনি এটি নিশ্চিত করেন, এখন পর্যন্ত মিন্নিকে আটক কিংবা গ্রেফতার করা হয়নি।

মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা পৌরসভার মাইট এলাকার নিজ বাসা থেকে মিন্নিকে পুলিশ লাইনে আনা হয়। এ সময় তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরও সঙ্গে ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাত শরীফকে। পরে এ ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়।

তাতে দেখা যায়, স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও শেষ পর্যন্ত স্বামীকে বাঁচাতে পারেননি।

এ ঘটনায় রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫ থেকে ৬ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সম্প্রতি ওই হামলার ঠিক আগ মুহূর্তে আরেকটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে রিফাতের বাবা গত ১৩ জুলাই সংবাদ সম্মেলন করে মিন্নিকে তার ছেলে খুনে জড়িত থাকায় গ্রেফতারের দাবি জানান।

যদিও পরের দিন মিন্নি সংবাদ সম্মেলন করে রিফাত হত্যায় তার জড়িত থাকার কথা নাকচ করে দেন। একই সঙ্গে শ্বশুরের দাবিকে বানোয়াট এবং মনগড়া বলে দাবি করেন।

ওএস/আইএম

আরও পড়ুন...
শ্বশুরের বক্তব্য বানোয়াট ও মনগড়া: মিন্নি
মিন্নিকে গ্রেফতারের দাবি জানালেন শ্বশুর

 

বরিশাল: আরও পড়ুন

আরও