বাজেটে আয়-ব্যয়ের কত হিসাব কষেছেন অর্থমন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

বাজেটে আয়-ব্যয়ের কত হিসাব কষেছেন অর্থমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৮:৪১ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৯

বাজেটে আয়-ব্যয়ের কত হিসাব কষেছেন অর্থমন্ত্রী

নতুন অর্থমন্ত্রীর আসছে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে নানা চমক থাকছে। সেই হিসাবে বৃহস্পতিবার সংসদে বাৎসরিক আয়-ব্যয়ের পরিকল্পনা উপস্থাপন করবেন তিনি।

জানা গেছে,  জাতীয় বাজেটের মূল অংশ মূলত দুটি । প্রথম অংশ রাজস্ব আদায় বা আয় সংক্রান্ত বিবরণী দিবেন অর্থমন্ত্রী। এই অংশে সরকারের রাজস্ব ব্যবস্থা ও আদায় সংক্রান্ত প্রস্তবসমূহ উপস্থাপন করবেন তিনি। আর দ্বিতীয় অংশে থাকে সরকারি ব্যয়ের প্রস্তাব সমূহ তুলে ধরবেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। এরমধ্যে অর্থমন্ত্রীর দেখানো ছকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড রাজস্ব প্রস্তাবসমূহ প্রণয়ন করেছে এবং অর্থ বিভাগ ব্যয় প্রস্তাবসমূহ প্রণয়ন করেছে।

২০১৯-২০ অর্থবছরের মোট আয়:

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল আসছে অর্থবছরের জন্য মোট ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার আয়র-ব্যায়ের হিসাব চূড়ান্ত করেছেন। এরমধ্যে বাজেট প্রস্তাবে বড় আকারের ব্যয় মেটাতে মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। আর অনুদানসহ আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৮১ হাজার ৯৭৮ কোটি টাকা। এটি জিডিপির ১৩ দশমিক ১ শতাংশের সমান। চলতি বছর মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা। এ হিসাবে আগামী বাজেটে রাজস্ব আয়ের পরিমাণ ৩৮ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা বেশি ধরা হয়েছে।

এ ছাড়া ২০১৯-২০ অর্থবছরে কর রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা প্রস্তাব করা হচ্ছে ৩ লাখ ৪০ হাজার ১০৩ কোটি টাকা, এটি জিডিপির ১১ দশমিক ৮ শতাংশ। এর মধ্যে এনবিআর থেকে সরাসরি কর রাজস্ব পরিমাণ ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা ধরা হয়েছে। যা মোট জিডিপির ১১ দশমিক ৩ শতাংশ।

এনবিআরবহির্ভূত কর রাজস্ব পরিমাণ ১৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এটি মোট জিডিপির শূন্য দশমিক ৩ শতাংশ। কর ব্যতীত আয় হবে ৩৭ হাজার ৭১০ কোটি টাকা। এ ছাড়া বৈদেশিক অনুদানের পরিমাণ আগামী বছরে দাঁড়াবে ৪ হাজার ১৬৮ কোটি টাকা।

২০১৯-২০ অর্থবছরের মোট ব্যয়:

আসন্ন বাজেট প্রস্তাবে মোট ব্যয় চূড়ান্ত করা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। যা জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ। চলতি বাজেটের আকার হচ্ছে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ ব্যয়ের পরিমাণ বাড়ছে ৫৮ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা।

এ ব্যয়ের বড় একটি অংশ যাবে পরিচালন খাতে। এতে ব্যয় হবে ৩ লাখ ১০ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। এর মধ্যে আবর্তক ব্যয় হবে ২ লাখ ৭৭ হাজার ৯৩৪ কোটি টাকা। যার একটি বড় অংশ ব্যয় হবে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়নে।

আগামী অর্থবছরে এডিপি খাতে ব্যয় হবে ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। আবর্তক খাতের আরও একটি অংশ ব্যয় হবে সুদ পরিশোধে। অর্থাৎ বিদেশ থেকে নেয়া ঋণের সুদ পরিশোধে ব্যয় করা হবে ৪ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা এবং অভ্যন্তরীণ ঋণের সুদ পরিশোধ করা হবে ৫২ হাজার ৭৯৭ কোটি টাকা।

ব্যয়ের আরেকটি খাত হচ্ছে এডিপিবহির্ভূত প্রকল্প। এ খাতে ব্যয় হবে ৫ হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। এ ছাড়া বিভিন্ন সরকারি স্কিমে ব্যয় হবে ১ হাজার ৪৬৩ কোটি টাকা। আর কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচিতে ব্যয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার ১৮৪ কোটি টাকা। পাশাপাশি মূলধনী খাতে ব্যয় হবে ৩২ হাজার ৩২৮ কোটি টাকা, খাদ্য হিসাবে ৩০৮ কোটি টাকা এবং ঋণ ও অগ্রিম খাতে ব্যয়ের লক্ষ্য হচ্ছে ৯৩৭ কোটি টাকা।

এফএ/এএসটি

আরও পড়ুন...
আগামীকাল আসছে ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার বাজেট
সংস্কার আর নতুনত্বের বাজেটে যা রেখেছেন মুস্তফা কামাল
বাজেটে বাড়ছে ভাতার আওতা

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও